বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

বাঘাবাড়ী বড়াল সেতুর বেহাল দশা যানবহন চলাচলে মারাত্মক ঝুঁকি

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) : বাঘাবাড়ী বড়াল নদীর ওপর নির্মিত সেতুর বেহাল অবস্থা

 

এম.এ. জাফর লিটন শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) থেকে : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের বাঘাবাড়ী বড়াল নদীর উপর নির্মিত দীর্ঘ সেতুটি যানবহন চলাচলের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। পাবনাÑবগুড়া মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ এই সেতুটি দীর্ঘদিন ধরে অসংখ্য খানাখন্দায় ভরপুর থাকলেও কর্তৃপক্ষের যেন কোন নজর নেই। ফলে ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছে বাস, ট্রাকসহ মালবাহী নানা যানবহন।  দীর্ঘদিন ধরে এ সেতুর মাঝখানে ফাটল ও খানা খন্দায় ভরে যাওয়ায় সেতুটি ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। লক্কও ঝক্কর এই সেতুতে চলাচল করতে গিয়ে প্রতি বছর দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে চালক ও যাত্রীরা। এই সেতু দিয়ে কুষ্টিয়া ও পাবনা জেলার সকল যানবহন বগুড়া ও রাজধানী ঢাকায় চলাচল করে তাই, এ সেতু যতদ্রুত সম্ভব মেরামতের দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের। স্থানীয় বাসিন্দা ও সওজের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ১৯৬৩ সালে বাঘাবাড়ী বড়াল নদীর ওপর নির্মিত হয় আধা কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতু। এই সেতুর পাশেই ১৯৮৩ সালে তৎকালীন সরকার উত্তরাঞ্চলের বৃহত্তম নদী বন্দর প্রতিষ্ঠা করেন। স্থানীয়রা জানান, সেতুটি বহু পুরাতন হওয়ার ফলে কোনো যানবাহন উঠলেই সেতুটি কেঁপে উঠে। কয়েক বছর ধরেই সেতুটির এমন অবস্থা। কিন্তু বিকল্প কোনো ব্যবস্থা না থাকায় এ সেতুর ওপর দিয়েই ঝুঁকি নিয়েই চলছে বৃহত্তর পাবনা জেলার যানবাহন। ঢাকাসহ সারা দেশের সঙ্গে পাবনা জেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগের এটিই একমাত্র পথ। সম্প্রতি সেতুর মাঝখানে ফাটল ও খানাকন্দায় ভরপুর দেখা দিয়েছে। যেকোনো সময় এ সেতুটিতে বড় ধরনের দূর্ঘটনার কবলে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেতুটি ভেঙে গেলে এ অঞ্চলের মানুষের ব্যবসায় বাণিজ্যের ও যোগাযোগ ব্যবস্থার মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটবে। বাঘাবাড়ী বড়াল সেতুর ফুটপাতসহ রেলিং গুলোরও বেহাল অবস্থা। ফুটপাতের পাশ দিয়ে অসংখ্য বালুর স্তুপ জমে যাওয়ায়  ফাটল ও ভাঙা অংশে দেওয়া হয়েছে জোড়াতালি। কিন্তু সেতুর অবস্থা ভালো না। যে কোনো মুহূর্তে বড় দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। 

এ ব্যাপারে রুপবাটি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম শিকদার বলেন, দীর্ঘদিন বেহাল অবস্থা থাকার ফলে ও অতিরিক্ত ভারি যানবাহন চলাচলের চাপে এই সেতুর বুক বরাবর রয়েছে ফাটল। সেতুটির পিচ উঠে বেরিয়ে পড়েছে সেতুটির কঙ্কাল। সেতুর তলায় শ্যাওলার আস্তরণ জমেছে। ভারি যানবাহন পার হলেই কেঁপে উঠছে এই সেতু। তাই দ্রুত সড়ক জনপদ বিভাগের উচিৎ সেতুটি সংস্কার করে দেয়া। 

এককথায় বলা যায়  বাঘাবাড়ী বড়াল এই সেতুটি এখন মৃত্যুর ফাঁদ। তবুও যানবাহনেও মানুষ নিরুপায় হয়েই এই সেতুটির উপর দিয়ে যাতায়াত করছে। বাঘাবাড়ী বন্দরের সিমেন্ট, সার ও  ওভারলোড বালি, পাথর, কয়লা বোঝাই ডাম্পার গাড়ীগুলোই এই সেতুটিকে বেশি ক্ষতি করছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ