বুধবার ২৭ মে ২০২০
Online Edition

নুসরাত পরিবারের সন্তোষ প্রকাশ ॥ আপিল করবে দন্ড প্রাপ্তরা

ফেনী সংবাদদাতা : সোনাগাজী মাদরাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় ১৬ আসামীকে ফাঁসির আদেশের রায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেছে নুসরাতের বাবা একেএম মুসা এবং ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান ও রায়হান।

অপরদিকে রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করার ঘোষণা দিয়েছেন আসামীপক্ষের আইনজীবীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন নুসরাতের বাবা ও দুই ভাই। তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় তারা রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে আমরা ন্যায় বিচার পেয়েছি। তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। এছাড়া উক্ত রোমহর্ষক ঘটনার তথ্য উদঘাটনে পিবিআই ও গণমাধ্যমের ভূমিকায়ও তারা সন্তোষ প্রকাশ করেন। নুসরাত রাফির ছোট ভাই রায়হান রায় শুনে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়ে। সে জানায়, হত্যাকারিরা তাদের পরিবারকে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। তার বাড়িতে নিরাপত্তা আরো জোরদার করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি দাবী জানান।

অপরদিকে সম্পূর্ণ বিনা ফিতে মামলাটি পরিচালনার জন্য আইনজীবীদের প্রতিও তারা কৃতজ্ঞতা জানান। বাদীপক্ষের আইনজীবী এম. শাহজাহান সাজু বলেন, দেশের বিচারাঙ্গনে এটি একটি নজিরবিহীন। শুরু থেকেই পুলিশ মামলাটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহের চেষ্টা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পিবিআই মামলাটি তদন্ত করে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করে। এছাড়া মাত্র ৬২ কার্যদিবসে মামলাটি নিষ্পত্তি হয়েছে। যা দেশে বিচারাঙ্গনে মাইলফলক হয়ে থাকবে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হাফেজ আহম্মদ বলেন, এ রায়ের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে, দেশে খুন করে কেউ পার পাবে না। এ রায়ের মাধ্যমে এটাই প্রমাণিত হয় দেশে আইনের শাসন আছে। এ মামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিচারক, আইনজীবী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অপরদিকে আসামীপক্ষের আইনজীবী গিয়াস উদ্দিন নান্নু মামলার এ রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি প্রশ্ন রাখেন, স্বয়ং ভিকটিম নুসরাত ডায়িং ডিক্লারেশনে যাদের নাম উল্লেখ করেনি তারা কিভাবে অভিযুক্ত হয়। এ রায় উচ্চ আদালতে বাতিল হয়ে যাবে দাবী করে তিনি বলেন, দ্রুততম সময়ে তারা আপিল করবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ