শুক্রবার ০৫ জুন ২০২০
Online Edition

আমরণ অনশনে নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা

এমপিওভুক্তির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ পাওয়ার অপেক্ষায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থানরত নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে শিক্ষকদের পদযাত্রায় পুলিশি বাধা -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: এমপিও নীতিমালা সংশোধনের দাবিতে আজ শুক্রবার থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করবেন নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীরা। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে তাদের পদযাত্রায় পুলিশ বাধা দেয়ায় বৃহস্পতিবার বিকেলে এ ঘোষণা দেন নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের নেতারা।

নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহামুদুন্নবী ডলার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আমাদের পদযাত্রায় পুলিশ বাধা দিয়েছে। এর প্রতিবাদে আগামীকাল (শুক্রবার) বাদ জুমা জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের রাস্তার ফুটপাতে আমরা আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করবো। তিনি বলেন, এ কর্মসূচি শুরুর আগে আমাদের অবস্থান ধর্মঘট পালিত হবে। ফুটপাতের ওপর বসে আমরা জুমার নামাজ আদায় ও মোনাজাত করবো। এরপর শিক্ষক-কর্মচারীরা অমরণ অনশন শুরু করবেন। প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ না পাওয়া পর্যন্ত এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

গোলাম মাহামুদুন্নবী ডলার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গত তিনদিন ধরে প্রায় ১০ হাজার শিক্ষক জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করলেও দাবি বাস্তবায়ন হয়নি। সরকারের আমলারা নিজেদের স্বার্থে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভুল তথ্য তুলে ধরছেন। আমাদের মানবেতন জীবন যাপন ও অসঙ্গতিপূর্ণ নীতিমালার সার্বিক বিষয় তুলে ধরতে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করার দাবি নিয়ে ৩২ বারের মতো রাজপথে নেমেছি। জনমাতার সাক্ষাৎ পেলে নন-এমপিও শিক্ষকদের সকল দুঃখ-দুর্দশা কেটে যাবে।

বৈষম্যপূর্ণ এমপিও নীতিমালা সংশোধন, স্তর ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির সিদ্ধান্ত বাতিল ও স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সকল প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তি করার দাবিতে গত তিনদিন ধরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কের ফুটপাতে বসে শিক্ষক-কর্মচারীরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হলেও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বেলা সাড়ে ১১টায় তারা পদযাত্রা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তারা নীতিমালার অসঙ্গতি ও বৈষম্যসহ সার্বিক সকল বিষয় তুলে ধরবেন বলে জানান। তবে তাদের পদযাত্রায় বাধা দেয়া হলে ফিরে এসে শুক্রবার থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হয়।

এদিকে একযোগে ৫ হাজার ২৪২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ ও হস্তক্ষেপ কামনা করে বৃহস্পতিবার তৃতীয় দিন মতো জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন তারা। পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী বেলা বারোটার দিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় অভিমুখে পদযাত্রা শুরু করলে প্রেস ক্লাবের কাছেই কদম ফোয়ারার সামনে মিছিলের গতিরোধ করে পুলিশ। সেখান থেকে ফিরে এসে তারা ফের প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নেন। গোলাম মাহামুদুন্নবী ডলার জানান, একযোগে ৫ হাজার ২৪২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে আগামীকাল শুক্রবার বিকেল থেকে আমরণ অনশন শুরু করবেন শিক্ষকরা। 

প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থানরত শিক্ষকরা জানান, স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির অধিকার আদায়ের দাবিতে এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি। নতুন নীতিমালাটি ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে জারি করা হলেও আমাদের প্রতিষ্ঠানগুলো নতুন না। আমরা দীর্ঘদিন ধরে পাঠদান করিয়ে আসছি। ৫ হাজার ২৪২টি প্রতিষ্ঠান স্বীকৃতি পেলেও নীতিমালার কথা বলে আমাদের দমিয়ে রাখা হচ্ছে। একাডেমিক স্বীকৃতিই এমপিও মানদ-। আমরা সে হিসেবে আমাদের প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিওভুক্ত হবে সে আশা করছি। তাঁরা আরও জানান, আমরা শুরু থেকেই দাবি জানাচ্ছি স্বীকৃতপ্রাপ্ত সব প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার। বিভিন্ন সময়ে সরকার যখন প্রতিষ্ঠানগুলোকে স্বীকৃতি দিয়েছে তখন সব যোগ্যতাই ছিলো। কয়েকবছর আগে পরে এমপিওভুক্তির সময় শিক্ষার্থী কম, অমুক-তমুক কম বলা হচ্ছে। কিন্তু তা শিক্ষকদের কাছে এসব যুক্তি গ্রহণযোগ্য হবে না।  

শিক্ষকরা বলেন, আমরা নীতিমালা মানিনা। নীতিমালা একটাই একাডেমিক স্বীকৃতি। নতুন এমপিও খুবই কঠোর। এ  নীতিমালা রাজনৈতিকভাবে পর্যালোচনা করা হয়নি। শিক্ষক সমাজ বা সুধি সমাজ থেকেও তা পর্যালোচনা করা হয়নি। এ নীতিমালা আমরা মানি না।

এদিকে এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী শুধু যোগ্য প্রতিষ্ঠানগুলোকেই এমপিওভুক্ত করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ সরকার। আর শিক্ষক নেতারা চান সব প্রতিষ্ঠান একযোগে এমপিওভুক্ত করতে। তাদের দাবি, সরকার কর্তৃক স্বীকৃতি পাওয়ার সময় সবাই যোগ্য ছিলো। যুগ যুগ ধরে ননএমপিও থাকায় অনেক প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও শিক্ষক কমে গেছে যার দায় তাদের নয়। 

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ