শুক্রবার ০৭ আগস্ট ২০২০
Online Edition

দুইদিন বন্ধের পর আজ মাঠে নামছে শিক্ষার্থীরা

স্টাফ রিপোর্টার : দুইদিন বিরতির পর আজ মঙ্গলবার আন্দোলনে নামছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়-বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। গতকাল ফাহাদের খুনীদের বিচারের দাবিতে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়া শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা চলাকালীন পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের সহযোগিতা করে। ভর্তি পরীক্ষার কারণে রবি ও সোমবার আন্দোলন শিথিল করেছেন শিক্ষার্থীরা। এ দিকে আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার দায়ে (বুয়েট) শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক অমিত সাহাকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। খুনীদের বিচারের দাবিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে।
আবরার ফাহাদ হত্যার বিচারসহ বিভিন্ন দাবিতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) আন্দোলন করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। গতকাল সোমবার আবরার হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করছেন আন্দোলনকারীরা। আজ মঙ্গলবার থেকে আবার আন্দোলন পুরোদমে চলবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।
গতকাল সকাল ৯টা থেকে তিন ঘণ্টার লিখিত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা শেষ হয় দুপুর ১২টায়। শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা শেষ হয়েছে। মোট পরীক্ষার্থীর ৯০ শতাংশই পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলেন বলে জানিয়েছে বুয়েট কর্তৃপক্ষ।
ভর্তি পরীক্ষার কারণে সকাল থেকেই বুয়েট ক্যাম্পাসে ভর্তি-ইচ্ছুক ও তাদের অভিভাবকেরা ভিড় করেন। এর মধ্যেই ক্যাম্পাসে শহীদ মিনারের সামনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে কর্মসূচি পালিত হয়। আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচি পালিত হয়। সেখানে অনেক শিক্ষার্থীকেই স্বাক্ষর করতে দেখা যায়।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থী সাইদুল আরাফাত বলেন, তারা শিক্ষার পরিবেশ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আন্দোলন করছেন। সব দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে।
বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নিয়েছে, তাহলে আন্দোলন কেন, জানতে চাইলে সাইদুল আরাফাত বলেন, মেনে নেয়ার ঘোষণা আর বাস্তবায়ন এক নয়। শিক্ষার্থীরা কেবল আশ্বাস নয়, বাস্তবায়নও দেখতে চান।
ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে কয়েকটি কেন্দ্র পরিদর্শন করেন বুয়েট ভিসি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। এ সময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি পূরণে আমরা কাজ করছি। আবরার হত্যার প্রতিবাদে চলমান আন্দোলন ভর্তি পরীক্ষায় প্রভাব ফেলেনি। বুয়েটের সংকট নিরসনে কয়েকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের দাবি আমরা মেনে নিয়েছি। আশা করি, দ্রুতই সংকট নিরসন হবে।
তিনি জানান, বুয়েটের হলে হলে অভিযান অব্যাহত থাকবে। নিয়মিত শিক্ষার্থীদের বাইরে কেউ হলে থাকতে পারবেন না। বুয়েটে ছাত্র-শিক্ষকদের সাংগঠনিক রাজনীতিও থাকবে না।
ভর্তি কমিটি সূত্র জানিয়েছে, এ বছর ভর্তির জন্য ১৬ হাজার ২৮৮টি আবেদন পড়েছিল। তার মধ্যে থেকে ১২ হাজার ১৬১ শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। এর মধ্যে আট হাজার ৮৯৬ জন ছাত্র ও তিন হাজার ২৬৫ জন ছাত্রী।
ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণের মাধ্যমে মেধা অনুযায়ী ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন এক হাজার ৬০ জন। এরমধ্যে এক হাজার পাঁচজন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ও ৫৫ জন আর্কিটেকচার বিভাগে ভর্তি হতে পারবেন। ফলাফল প্রকাশিত হবে আগামী ৫ নভেম্বরের মধ্যে।
পরীক্ষার্থীদের সহায়তায় শিক্ষার্থীরা: বুয়েট ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় আসা অভিভাবকদের বিনামূল্যে পানি, নাশতা ও কলম সরবরাহ করেছে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। স্বেচ্ছাসেবীদের একজন জানান, তারা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা অভিভাবকদের জন্য পানি, হালকা নাশতা এবং শিক্ষার্থীদের জন্য ক্যালকুলেটর ও কলমের ব্যবস্থা করেছেন। অনেক সময় ক্যালকুলেটর ও কলম শিক্ষার্থীরা আনতে ভুলে যান বা পথে হারিয়ে ফেলেন। সেজন্য ভর্তিচ্ছুদের জন্য আমরা এসবের ব্যবস্থা করেছি। এছাড়াও অভিভাবকরা হালকা পানি ও নাস্তার জন্য এদিক-ওদিক ছোটাছুটি করেন। তাদের সেই প্রয়োজন থেকেও আমরা পানি ও নাশতার ব্যবস্থা করেছি।
বুয়েট ক্যাম্পাসের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে মোড়ে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা দু-তিনজন হয়ে গ্রুপভিত্তিক দাঁড়িয়ে আছেন। ক্যাম্পাসে আসা অভিভাবকদের তারা পথনির্দেশনা দিচ্ছেন।
অমিতকে স্থায়ী বহিষ্কার করল ছাত্রলীগ: আবরার ফাহাদ হত্যাকা-ে জড়িত থাকার দায়ে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপসম্পাদক অমিত সাহাকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। অমিতের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ‘অধিকতর তদন্তে’ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে বহিষ্কারের কথা জানিয়েছে ছাত্রলীগ।
গতকাল ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে অমিত সাহাকে বহিষ্কারের কথা জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুয়েটের সাম্প্রতিক অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ছাত্রলীগ দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি করে। ওই কমিটির অধিকতর তদন্তে উঠেছে এসেছে, অমিত সাহা ওই ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন না। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কথোপকথনের মাধ্যমে ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন তিনি। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অধিকতর তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হলো।
অমিত সাহা বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র।
রাস্তায় নটরডেমের শিক্ষার্থীরা: বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় বিচার চেয়ে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছেন নটর ডেম স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা।
গতকাল দুপুর ১টার দিকে শিক্ষার্থীরা প্রথমে শাপলা চত্বর এলাকায় অবস্থান নেন। এ সময় রাস্তায় বসে তারা উই ওয়ান্ট জাস্টিসসহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। ছাত্রদের অবস্থানের কারণে রাস্তায় যানচলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে বিক্ষুব্ধ ছাত্রদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।
রাস্তা ছেড়ে দেয়ার পর ছাত্ররা কলেজ গেটে জড়ো হয়ে আবার বিক্ষোভ শুরু করেন। সেখানে উপস্থিত হন নটর ডেম কলেজের রসায়ন বিভাগের শিক্ষক সঞ্জিত কুমার গুহ।
ছাত্রদের দাবির বিষয়ে সঞ্জিত কুমার গুহ বলেন, ছাত্রদের দাবির সঙ্গে আমরা একমত। আমরা এই হত্যাকা-ের বিচার দাবি করছি পাশাপাশি ছাত্রদের বোঝানোর চেষ্টা করছি তারা যেন ক্লাসে ফিরে যায়।
এদিকে নটর ডেম কলেজের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ব্রায়ন রোজারিও বলেন, আবরার ফাহাদ নটর ডেম কলেজের প্রাক্তন ছাত্র। এই অনুভূতির জায়গা থেকে শিক্ষার্থীরা হয়ত রাস্তায় নেমেছে। বুয়েটে যে ঘটনা ঘটেছে তাতে আমরা মর্মাহত, আমরাও এর বিচার দাবি করছি। তবে ছাত্রদের কর্মসূচির কারণে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সে বিষয়টি আমরা দেখছি। ছাত্রদের বুঝিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসের ভেতরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে, বলেন ব্রায়ন রোজারিও।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ