শুক্রবার ০৭ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বুয়েটের ঘটনার মূলে রয়েছে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন ও অপরাজনীতির আস্ফালন

রাজশাহী : গতকাল রোববার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় নিপীড়নবিরোধী ছাত্র-শিক্ষক ঐক্যের মানববন্ধনের একাংশ -সংগ্রাম

রাজশাহী অফিস: বুয়েটছাত্র আবরার হত্যার প্রতিবাদে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিপীড়ন বিরোধী ছাত্র-শিক্ষক ঐক্য আয়োজিত এক মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বুয়েটের ঘটনার মূলে রয়েছে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন ও অপরাজনীতির আস্ফালন। তাঁরা বলেন, ‘ছাত্র নামধারী গুন্ডাদের হাতে আক্রান্ত আর একজন আহত ছাত্র আমরা দেখতে চাই না।’
গতকাল রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের নির্মম হত্যাকাণ্ড দেশবাসীকে নাড়া দিয়েছে। এই ঘটনার অনুরণন দেশের সর্বত্র অনুভূত হচ্ছে। বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে। এই ঘটনার মূলে রয়েছে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন এবং অপরাজনীতির আস্ফালন। কিন্তু রাজনীতির বাইরেও, আবরার হত্যাকাণ্ড একটি গভীর মানবিক বার্তা বহন করে, তা হলো বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষক ও ছাত্র সমাজের তাদের দায়িত্ব পালনে নিদারুণ ব্যর্থতার। আজ রাজনীতির বাইরের এই সম্মিলিত মানবিক ব্যর্থতার দিকটি সামনে নিয়ে আসতে হবে। আমরা আর একজন আবরারেরও মৃত মুখ দেখতে চাই না। ছাত্র নামধারী গুন্ডাদের হাতে আক্রান্ত আর একজন আহত ছাত্র আমরা দেখতে চাই না। হলগুলোতে ছাত্রদের নিরাপত্তা ও সম্মানের সাথে আবাসন নিশ্চিত করার দায়িত্ব প্রশাসনের। তাদেরকে এ দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে হবে। ভবিষ্যতে ছাত্র নিপীড়নের আর একটি ঘটনাও আমরা মেনে নেবো না। ছাত্র নিপীড়নের যে কলঙ্কজনক দায়মুক্তি চলমান, তা বিশ্ববিদ্যালয়ের ধারণার সম্পূর্ণ পরিপন্থী। প্রফেসর ড. ইফতিখারুল আলম মাসউদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে মধ্যে বক্তব্য দেন, প্রফেসর ড. সালেহ হাসান নকীব, প্রফেসর ড. আফরীনা মামুন, প্রফেসর ড. আব্দুল্লাহ শামস বিন তারিক, প্রফেসর ড. আকতার বানু আল্পনা, অধ্যাপক ছাইফুল ইসলাম শামীম, মেহেদী হাসান প্রমুখ। শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন: প্রফেসর ড. সুলতানা মোস্তাফা খানম, প্রফেসর ড. আক্তার আলী, প্রফেসর ড. মোসা. নাসিমা আখতার, প্রফেসর ড. মামুনুর রশীদ, প্রফেসর ড. মোহাম্মাদ আলী, প্রফেসর ড. শামসুজ্জোহা এছামী, প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান, প্রফেসর ড. আতিকুর রহমান পাটোয়ারী, প্রফেসর ড. ইমতিয়াজ আহমেদ, প্রফেসর ড. আব্দুর রাজজাক, প্রফেসর ড. হারুনুর রশীদ, ড. আখতারুজ্জামান মজুমদার, ড. মোহা. মনিরুল হক, মো. আব্দুস সালাম প্রমুখ। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্ধশত শিক্ষক এবং তিন শতাধিক ছাত্র-ছাত্রীর উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে দলমত নির্বিশেষে যেকোনো ধরণের ছাত্র নিপীড়ন রোধে কয়েকটি দাবী উপস্থাপন করা হয়। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, প্রতিটি আবাসিক হল (গেস্টরুম, সিঁড়ি, বারান্দা, করিডোর ইত্যাদি) সিসি-টিভির আওতায় আনতে হবে। হলে সিট বণ্টন এবং আবাসনের ব্যাপারে কোন ছাত্র সংগঠনের কোন ধরণের হস্তক্ষেপ চলবে না এবং অবৈধভাবে বসবাসরত সকলকে হল থেকে বের করে দিতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ