সোমবার ২৫ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

ইসলামী আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা এটিএম হেমায়েতের ইন্তিকাল

গতকাল শুক্রবার জাতীয় সংসদ ভবন সংলগ্ন টিএন্ডটি মাঠে ইসলামী আন্দোলনের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এটিএম হেমায়েত উদ্দিনের নামাযে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। ইনসেটে এটিএম হেমায়েতং উদ্দিন -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ অধ্যাপক হাফেজ মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন (৬৩) গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারস্থ নিজ বাসভবনে ইন্তিকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি দীর্ঘদিন ফুসফুসে ক্যান্সারে ভুগছিলেন। ১১ ভাই ও ৫ বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয় ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে, নাতী-নাতনীসহ রাজনৈতিক সহকর্মী, ভক্ত-অনুরক্ত রেখে গেছেন। তিনি ঢাকা মাদরাসাই আলীয়া থেকে কামিল এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম এ সম্পন্ন করেন। তিনি পশ্চিম রাজাবাজার জামে মসজিদে ৪২ বছর যাবৎ ইমাম ও খতীবের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি মালিবাগ আবুজর গিফারী কলেজে দীর্ঘদিন অধ্যাপনা করে বর্তমানে রামপুরা কামরুন্নেসা ডিগ্রী কলেজের সহযোগী অধ্যাপকের দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি পশ্চিম রাজাবাজার হাফিজিয়া মাদরাসা, মাতুয়াইল আল্লাহ কারীম মাদরাসাসহ বহু মসজিদ-মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। তিনি ইসলামী আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাকালীন থেকে বর্তমান পর্যন্ত ঢাকা মহানগর সভাপতি, কেন্দ্রীয় সহকারী সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পালন করে বর্তমানে কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছিলেন। তিনি আশির দশকে আলীয়া মাদরাসার বিভিন্ন দাবি নিয়ে আন্দোলন গড়ে তুলেছিলেন। তাঁর ইন্তেকালের সংবাদ বিদ্যুৎগতি দেশ-বিদেশ ছড়িয়ে পড়লে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে এবং দলের মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, উত্তর সভাপতি প্রিন্সিপাল শেখ ফজলে বারী মাসউদসহ দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মীরা তাঁকে একনজর দেখার জন্য বাসায় ভীড় জমান। বাদ আছর জাতীয় সংসদ ভবন সংলগ্ন টিএন্ডটি মাঠে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার রাজৈর গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে পিতা-মাতার কবরের পাশে দাফন করার কথা রয়েছে। জানাজায় ইমামতি করেন দলের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই।
পীর সাহেব চরমোনাই’র শোক ও দোয়া
অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিনের ইন্তিকালে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই গভীর শোক প্রকাশ করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। তাৎক্ষণিক শোক বাণী পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, হেমায়েত উদ্দিন রাজনীতির অঙ্গণে একটি পরিচিত নাম। সকল আন্দোলন সংগ্রামে তিনি অত্যন্ত যোগ্যতা, দক্ষতা ও সচেতনতার সাথে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। দেশ ও ইসলামবিদ্বেষী শক্তির মোকাবেলায় তিনি অত্যন্ত বলিষ্ঠ ভুমিকা পালন করেছিলেন। আধিপত্যবাদী ও সম্প্রসারণবাদী শক্তির কাছে কখনো মাথানত করেননি। মহান রব্বুল আলামিন তাঁর সকল নেক আমল কবুল করে তাঁকে জান্নাতের সর্বোচ্চ মর্যাদান দান করুন, আমীন।
জাতীয় নেতৃবৃন্দের জানাজায় শরীক
মরহুমের নামাজে জানাজা খামারবাড়ী টিএন্ডটি খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী, খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের চেয়ারম্যান ড. ঈসা শাহেদী, জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম ভূইয়া, কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য দেলোয়ার হোসেন, ঢাকা মহানগরীর উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য আ.ক.ম কামাল উদ্দিন, ইসলামী আন্দোলনের আল্লামা প্রিন্সিপাল সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আলমাদানী, নূরুল হুদা ফয়েজী, মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, খেলাফত আন্দোলনের মাওলানা জাফরুল্লাহ খান ও মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, কামরুন্নেসা কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর ফজলুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. আব্দুস সবুর খান, জমিয়াতুল মোদাররেসীনের মহাসচিব মাওলানা শাব্বির আহমদ মমতাজী, মুসলিম লীগের মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, মুফতী ফজলুল হক আমিনী র. জামাতা মাওলানা জোবায়ের আহমদসহ ইসলামী আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সকল নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন সংগঠনের নেতবৃন্দ, দলীয় নেতাকর্মী সহকারী ভক্তবৃন্দ শরীক হন।
বিভিন্ন দল ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দের শোক
ইসলামী আন্দোলনের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিনের ইন্তেকালে খাদেমুল ইসলাম পরিষদের আমীর আল্লামা রুহুল আমীন গওহরডাঙ্গা, খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আব্দুল কাদের, ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের আমীর ড. ঈসা শাহেদী, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের নির্বাহী সভাপতি আব্দুল আজিজ হাওলাদার, মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসিচব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, বাংলাদেশ মসজিদ মিশনের সভাপতি মাওলানা জয়নুল আবেদীন ও সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা খলিলুর রহমান মাদানী, জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদের সভাপতি আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী, সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের সভাপতি অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, হাফেজ সিদ্দিকুর রহমান, জাতীয় শিক্ষক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, সেক্রেটারি মাওলানা এবিএম জাকারিয়া, উত্তর সভাপতি মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, সেক্রেটারি মাওলানা আরিফুল ইসলাম, ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি কেএম আতিকুর রহমান, সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা নেছার উদ্দিন, ইশা ছাত্র আন্দোলেনরে কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারূফ, সেক্রেটারি জেনারেল মুস্তাকিম বিল্লাহ, ইসলামী আইনজীবী পরিষদের সভাপতি এডভোকেট শেখ আতিয়ার রহমান, সেক্রেটারি এডভোকেট শওকত আলী হাওলাদার, ইসলামী মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সদস্য সচিব মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মাদারীপুর জেলার সভাপতি অধ্য্পক সৈয়দ বেলায়েত হোসেন, জেলা উপদেষ্টা আল্লামা লোকমান হোসেন জাফরী ও জেলা সেক্রেটারি মাওলানা এস এম আজিজুল হক, জাতীয় তাফসীর পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম ও মহাসচিব হাফেজ মাওলানা মাকসুদুর রহমান, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আতিকুল ইসলাম ও মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের পৃথক পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক প্রকাশ করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ