বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সিরিয়ায় অভিযানে তুর্কী-কুির্দ মধ্যস্থতা চান ট্রাম্প

 

১১ অক্টোবর, রয়টার্স : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অভিযান চালানো তুরস্কের সঙ্গে কুর্দি গেরিলাদের মধ্যস্থতায় আগ্রহ দেখিয়েছেন।

কুর্দি ওয়াইপিজি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটির ফোর্সেসের (এসডিএফ) নিয়ন্ত্রিত এলাকাতে বুধবার থেকে শুরু হওয়া আঙ্কারার ‘অপারেশন পিস স্প্রিং’য়ে দুই শতাধিক লোক নিহত ও কয়েক ডজন আহত হয়েছে বলে উভয় পক্ষের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা।

সীমান্তবর্তী শহরগুলোর ৬০ হাজারের বেশি মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে বলেও জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটবিরোধী (আইএস) লড়াইয়ে এসডিএফ যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র ছিল। সিরিয়া থেকে আইএস উৎখাতে কুর্দি গেরিলাদের বীরত্বপূর্ণ অবদানের কথা জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

অন্যদিকে আঙ্কারা এ কুর্দি ওয়াইপিজি গেরিলাদের তুরস্কে নিষিদ্ধ কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) সহযোগী মনে করে।

ট্রাম্প সিরিয়ার উত্তর পূর্বাঞ্চল থেকে সেনা সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দেওয়ার পরপরই তুরস্ক ওই এলাকায় কুর্দিবিরোধী অভিযানের কথা ঘোষণা করে।

সিরীয় শরণার্থীদের ফেরাতে সীমান্তে ‘নিরাপদ অঞ্চল’ প্রতিষ্ঠায় এ অভিযান হচ্ছে, বলেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান।

গত সপ্তাহে তার সঙ্গে এক ফোনালাপের পরপরই ট্রাম্প কুর্দি অধ্যুষিত অঞ্চল থেকে সৈন্য সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন।

মিত্রদের এভাবে ‘ঝুঁকির মুখে ফেলায়’ দেশে-বিদেশে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

প্রভাবশালী রিপাবলিকানরাও এ সিদ্ধান্তের কঠোর বিরোধিতা করছেন। এর মাধ্যমে ট্রাম্প সিরিয়ায় রাশিয়া, ইরান ও তুরস্কের প্রভাব বাড়ানোর সুযোগ করে দিলেন বলেও মত তাদের।

তুর্কি অভিযানে ওই অঞ্চলে আইএসের পুনরুত্থানের আশঙ্কাও করছেন অনেকে। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও অবশ্য ওই আশঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়েছেন।  

ট্রাম্প শুরু থেকেই সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তকে যৌক্তিক বলে দাবি করে আসছেন। আঙ্কারা ‘সীমা ছাড়ালে’ তাদের অর্থনীতি গুঁড়িয়ে দেয়ারও হুঁশিয়ারি আছে তার।

বৃহস্পতিবার এক টুইটে তিনি বলেছেন, “আমাদের হাতে তিনটি বিকল্প আছে: হাজার হাজার সৈন্য পাঠিয়ে সামরিকভাবে জয়ী হওয়া, অর্থনৈতিকভাবে তুরস্কের ওপর বড় ধরণের আঘাত হানা ও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া কিংবা তুর্কি ও কুর্দিদের মধ্যে একটি চুক্তিতে মধ্যস্থতা করা।”

“আমার বিশ্বাস, আমরা মধ্যস্থতা করতে পারবো,” পরে হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এ মন্তব্য করেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

বিস্তারিত না বলে নিষেধাজ্ঞা ও অন্যান্য অর্থনৈতিক বিধিনিষেধের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্র তুরস্কের বিরুদ্ধে সম্ভাব্য কঠোর অবস্থানই নিতে যাচ্ছে বলেও আশ্বস্ত করেছেন তিনি।

সিরিয়ায় আটক আইএস যোদ্ধারা যে কারাগারগুলোতে আছেন, সেগুলো এখনও কুর্দিদের নিয়ন্ত্রণে। এ আইএস যোদ্ধাদের দায়িত্ব নেয়ার ব্যাপারে তুরস্কের শীর্ষ পর্যায় থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রতিশ্রুতি দেয়া হলেও তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়নি বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

মার্কিন আইনপ্রণেতা ও গণমাধ্যমগুলো উত্তরপূর্ব সিরিয়ায় তুর্কি অভিযান ট্রাম্পের ‘সবুজ সংকেতে’ হয়েছে বলে ধারণা করলেও কর্মকর্তারা তা অস্বীকার করেছেন।

“আমরা একটি স্পষ্ট লাল দাগ টেনে দিয়েছি। ওই লাল দাগের সঙ্গে আমিও সংশ্লিষ্ট ছিলাম; আমি জানি প্রেসিডেন্ট রোববারই তা ম্পষ্ট করে বলে দিয়েছিলেন,” বলেছেন এক কর্মকর্তা।

গত বৃহস্পতিবার তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় কুর্দি নিয়ন্ত্রণাধীন অঞ্চলে অভিযানের প্রথম দুই দিনে ২২৮ ‘জঙ্গি’ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে।

সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস কুর্দি নেতৃত্বাধীন এসডিএফের ২৩ এবং তুর্কি সমর্থিত সিরীয় বিদ্রোহেীদের ছয়জনের নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

তুরস্কের বিমান হামলা ও গোলাবর্ষণে ৯ বেসামরিকের মৃত্যুর বিষয়টি জানিয়েছে এসডিএফ। কুর্দিদের পাল্টা মর্টার ও রকেট হামলায় তুরস্কের অভ্যন্তরে ৯ মাস বয়সী এক শিশুসহ ছয়জন নিহত হয়েছে বলে তুরস্কের দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় অঞ্চলের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

অভিযান শুরুর পর থেকে অন্তত ৬৪ হাজার মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে বলে জানিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল রেসকিউ কমিটি (আইআরসি)। সীমান্তবর্তী শহর রাস আল-আইন ও দারবাশিয়া জনশূন্য হয়ে পড়েছে বলেও জানিয়েছে তারা।

দুই দিনের অভিযানে তুর্কি বাহিনী রাস আল-আইনের কাছে দুটি গ্রাম ও তেল আবায়াদের কাছে ৫টি গ্রাম দখলে নিয়েছে বলে সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে।

গ্রামগুলো দখলের পর সৈন্যরা শহরদুটিকেও চারদিক থেকে ঘিরে ফেলেছে বলে জানিয়েছেন তুর্কি সমর্থিত সিরীয় বিদ্রোহীদের এক মুখপাত্র।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ