শুক্রবার ১৭ জুলাই ২০২০
Online Edition

রাজধানীর কাফরুলের বাসা থেকে স্ত্রী-পুত্রসহ ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর কাফরুলের একটি বাসা থেকে এক পরিবারের তিনজনের লাশ উদ্ধার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। এরা হলেন- বায়েজিদ, তার স্ত্রী অঞ্জনা ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মিরপুর ১৩ নম্বর সেকশনের ৫ নম্বর সড়কের ১০/১ নম্বর বাড়ির তিন তলা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয় বলে ডিএমপির মিরপুর জোনের সহকারী কমিশনার খায়রুল আমীন জানিয়েছেন। তিনি বলেন, “বায়েজিদকে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় পাওয়া যায়। অন্যদের লাশ বিছানায় পড়ে ছিল।”

বুধবার রাতের কোনো এক সময় এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে জানিয়ে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান, স্বজনরা ফোন দিয়ে তাদের না পেয়ে বাসায় গিয়ে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। ওই বাসায় পাওয়া একাধিক চিরকুট পাওয়া গেছে জানিয়ে তিনি বলেন, “বায়েজিদ ব্যবসা করতেন। কিন্তু নানা কারণে ব্যবসায় লস হচ্ছিল। এ অবস্থায় তার মধ্যে হতাশা দেখা দেয়। “আমরা ধারণা করছি বুধবার রাতের কোনো একসময় স্ত্রী ও সন্তানকে খবারের সাথে কিছু মিশিয়ে হত্যা করে বায়েজিদ আত্মহত্যা করেন।”

প্রতিবেশীরা জানান, এই ফ্ল্যাটে সরকার মো. বায়েজিদ (৪৫) নামের এক ব্যক্তি তার স্ত্রী অঞ্জনা (৪০) ও তাদের উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়া ছেলে মো. ফারহানকে (১৭) নিয়ে থাকতেন। বায়েজিদের গার্মেন্টস ব্যবসা রয়েছে। তিনি বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছেন। সম্প্রতি ঋণখেলাপের কারণে তার বিরুদ্ধে একটি ব্যাংক মামলা করে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মো. বায়েজিদের বয়স আনুমানিক ৪৫ বছর। তিনি বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা করতেন। ব্যবসার কারণে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কোনো ব্যবসাতেই লাভ করতে পারেননি। ঋণ পরিশোধ করতে না পারায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ মো. বায়েজিদের বিরুদ্ধে কাফরুল থানায় মামলা করে। এ নিয়ে হতাশায় ভুগছিলেন বায়েজিদ।

কাফরুল থানার ওসি সেলিমুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে ওই বাসায় যাই আমরা। প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নিহত ব্যক্তির নাম বায়েজিদ ও নারীর নাম অঞ্জনা। ছেলেটি উচ্চ মাধ্যমিকে পড়ত। ওই নারী ও ছেলেটির লাশ বিছানার ওপরে পাওয়া গেছে। বায়েজিদের লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলানো অবস্থায় পাওয়া গেছে। মৃত্যুর কারণ এখনো পরিষ্কার নয়। সিআইডির ক্রাইম সিন আলামত সংগ্রহ করেছে। আমরা তদন্ত করছি। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ