বুধবার ০৩ জুন ২০২০
Online Edition

কুষ্টিয়ায় দুই মুক্তিযোদ্ধার জানাযা শেষে দাফন সম্পন্ন

কুষ্টিয়া সংবাদদাতা: কুষ্টিয়ায় দুই মুক্তিযোদ্ধার নামাযে জানাযা শেষে রাষ্ট্রিয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন হয়েছে। গত মঙ্গলবার সকালে কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং ঈদগাহ ময়দানে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি,জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা খন্দকার সাজেদুর রহমান বাবলু ও বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. হান্নান হোসেনের জানাজায় দলমত নির্বিশেষে শত শত ব্যক্তিবর্গ অংশ গ্রহণ করেন।
জানাযা শেষে কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি,জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা খন্দকার সাজেদুর রহমান বাবলুর লাশ কুষ্টিয়া পৌর গোরস্তানে ও বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. হান্নান হোসেনের লাশ গ্রামের বাড়ি মেহেরপুর জেলার গাংনীতে দাফন করা হয়।
কুষ্টিয়া হাউজিং ঈদগাহ ময়দানে জানাজায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ সভাপতি বাবু নিতাই রায় চৈাধরী, খুলনা বিভাগীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি সৈয়দ মেহেদী আহম্মেদ রূমী, সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আজগর আলী। উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি রেজা আহমেদ বাচ্চু মোল্লা, কুষ্টিয়া জেলা জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ খন্দকার একে এম আলী মহসীন, জাতীয় পার্টির জেলা আহবায়ক জাফরুল্লাহ খান লাহরী, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসাইন, প্রেেকৗশলী জাকির হোসেন সরকারসহ বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
জানাযার পূর্বে কুষ্টিয়া হাউজিং ঈদগা মাঠে নামাজে জানাযার আগে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।
উল্লেখ্য, খন্দকার সাজেদুর রহমান বাবলু চিকিৎসাধীন অব¯’ায় সোমবার ঢাকা ইউনাইটেড হাসপাতালে তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৬৫ বছর। জেলা বিএনপির রাজনীতি ছাড়াও তিনি কুষ্টিয়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক দর্পন পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। অন্যদিকে এ্যাড. হান্নান হোসেন সোমবার দুপুরে ঢাকায় ইন্তেকাল করেন। তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ