শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০
Online Edition

সেপ্টেম্বর মাসে রাজনৈতিক সন্ত্রাস

মুহাম্মদ ওয়াছিয়ার রহমান :  [পাঁচ]

বগুড়ার ধুনটে পৌর যুবলীগ সভাপতি সোহরাব হোসেন সৌরভকে ফেনসিডিলসহ আটক করে পুলিশ। ২৯ সেপ্টেম্বর বগুড়ার শাহজাহানপুরে জেলা যুবলীগ নেতা নাদিম হোসেনের অফিসে আওয়ামী লীগ নেতা মাহফুজুর রহমান বাবলুকে হত্যার প্রচেষ্টার অভিযোগ করে ভিকটিম পরিবার।
শ্রমিক লীগ : ২৬ সেপ্টেম্বর ঢাকার কাওরান বাজারে জাতীয় শ্রমিক লীগ সরকারী জায়গা দখল করে তৈরী করা কার্যালয় উচ্ছেদ করে উত্তর সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।
স্বেচ্ছাসেবক লীগ : ২ সেপ্টেম্বর বগুড়ার শেরপুর বাসস্ট্যান্ডে বিএনপির অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবক লীগ হামলা করে এবং পুলিশ উল্টা বিএনপির ১৫ জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলো- সোবায়দুল ইসলাম, কাওছার আহমেদ কলিন্স, আমির হামজা, কাওছার আলী, সাজ্জাদ আলী, মেহেদী হাসান জীবন, লিমন ইসলাম, ইফতেখার আলম, রব্বানী হোসেন, রিপন, শিপন ইসলাম, মোহর আলী, মেহেদী হাসান, নূর আলম ও আলম মিয়াকে আটক করে পুলিশ। ১২ সেপ্টেম্বর সিলেট শহরের মির্জা জাঙ্গাল এলাকা থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ জেলা সিনিয়র সহ-সভাপতি পীযূষ কান্তি দে, তার সহযোগী বাপ্পা পাল, মিন্টু রায় ও রায়হান আহমেদকে ১টি বিদেশী রিভালবার, ২ রাউন্ড গুলি ও বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ আটক করে র‌্যাব। গত ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে অস্ত্রসহ তার ছবি পত্রিকায় দেখা যায়। ২০১৪ সালে হোটেলে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে আটক হয় এবং গত ৬ আগষ্ট তার অনুসারীরা ৩ প্রবাসীকে মারধর করে। ২৫ সেপ্টেম্বর ঢাকায় উইলস লিটিল ফ্লাওয়ার স্কুল এ্যান্ড কলেজে নিয়োগ বানিজ্য, চাকরিচ্যুতি ও ফান্ডের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে জাতীয় প্রেস ক্লাবে প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও স্বেচ্ছসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি আরিফুর রহমান টিটুর বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন করে সাবেক শিক্ষিকা নাজমা হোসেন লাকি।
কৃষক লীগ : ২০ সেপ্টেম্বর ঢাকার কলাবাগান ক্রীড়া-চক্র ক্লাব সভাপতি ও আওয়ামী কৃষক লীগ নেতা শফিকুল আলম ফিরোজ এবং অপর ৫ জনকে বিদেশী পিস্তল, ৩ রাউন্ড গুলি এবং ৭ প্যাকেট ইয়াবাসহ আটক করে র‌্যাব-২।
তাঁতী লীগ : ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকায় তাঁতি লীগের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় তাঁতি লীগ সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমেদ ও দফতর সম্পাদক রফিকুল ইসলামকে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গ করার দায়ে বহিস্কার করা হয়।
বিএনপি : ১ সেপ্টেম্বর বগুড়ার ধুনটে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে সরকার দলীয় ক্যাডাররা হামলা করে। পুলিশ উল্টা বিএনপির ৪ নেতা-কর্মীকে আটক করে। ঢাকার শেরে বাংলানগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে জিয়ার মাজার জিয়ারত কালে বিএনপি ঢাকা মহানগর উত্তর সিনিয়র সহ-সভাপতি মুন্সী বজলুল বাসিত আঞ্জুকে লাঞ্ছিত করে দলীয় প্রতিপক্ষ গ্রুপ। ৫ সেপ্টেম্বর ফরিদপুরের নগরকান্দায় আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আওয়ামী লীগের আহত ২ জন। আওয়ামী লীগ নেতা পাচু ও বিএনপি নেতা জয়নাল আবেদীন গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষে কুদ্দুস মাতুব্বর ও তার ছেলে ফিরোজ মাতুব্বর আহত হয়। ৬ সেপ্টেম্বর রাজশাহীর মোহনপুরে পৌর বিএনপির সভাপতি আলাউদ্দিন আলোকে দুর্নীতির মামলায় ও জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলামকে নারী ঘটিত ভূয়া মামলায় আটক করে পুলিশ। খুলনা জেলা বিএনপির সমাজকল্যাণ সম্পাদক মঞ্জুর হাসান পল্টুর ভাতিজাকে আটক করে পুলিশ।
১৬ সেপ্টেম্বর যশোর সদরে বিএনপি নেতা অনিন্দ্য ইসলাম অমিত এক মামলায় হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়। ময়মনসিংহ সদর থেকে জেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক আকন্দকে আটক করে পুলিশ। ২৩ সেপ্টেম্বর সিলেটের গোলাপগঞ্জ ঢাকা দক্ষিণ বাজার থেকে উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নোমান উদ্দিন মুরাদ ও উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ্বলসহ ৬ নেতা-কর্মীকে আটক করে পুলিশ। ২৫ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের গৌরীপুরে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহবায়ক অধ্যাপক শাহজাহান সিরাজ, উত্তর জেলা যুবদল সাবেক সহ-সমাজকল্যাণ সম্পাদক সাইফুল হাসান শিপন ও ছাত্রদল নেতা মাসুদ পারভেজকে পুলিশ আটক করে। ২৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহী শহরে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ উপলক্ষে বিএনপির ৫ হাজার নেতা-কর্মীকে পুলিশ আটক করে বলে বিএনপি দাবি করে।
ছাত্রদল : ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার পল্টনে বিএনপির অফিসের সামনে থেকে ছাত্রদল কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা সভাপতি নাদিমুর রহমান শিশির, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাছির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন, কুমিল্লা মহানগর যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আতিক রুবেল ও কবি নজরুল কলেজ ছাত্রদল নেতা সজিব হোসেন স্বাধীনকে পুলিশ আটক করে। ২৭ সেপ্টেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান, যুগ্ম-সম্পাদক শাকিলুর রহমান সোহাগ, সদস্য তুষার ও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রদল সভাপতি হিমেল রানাকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নেয়ার দাবি করে ছাত্রদল।
জামায়াত : ৬ সেপ্টেম্বর পাবনা শহরে দারুল আমান ট্রাস্ট মসজিদ থেকে পবিত্র দারসে কুরআন চলা কালে পুলিশ পৌর জামায়াত নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল লতিফ ও সদর উপজেলা নায়েবে আমীর মাওলানা ময়েজ উদ্দিনসহ ১১ নেতা-কর্মীকে আটক করে। ঝালকাঠি সদর থেকে পুলিশ জেলা জামায়াত সেক্রেটারি ফরিদুল হক, পৌর জামায়াত আমীর আব্দুল হাই, মনিরুজ্জামান, হাবিবুর রহমান, হারুন তালুকদার, মাহমুদুল হাসান, গোলাম মোস্তফা, সেলিম উদ্দিন, আবুল কালাম, হাফিজুর রহমান, নজরুল ইসলাম, মোজাম্মেল হক, জাহাঙ্গীর আলম, এ্যাডঃ ফরিদ উদ্দিন, মহিউদ্দিন খোকন, শহর শাখা সেক্রেটারি মনিরুল ইসলাম ও জেলা কর্ম পরিষদ সদস্য মাওলানা আব্দুল কুদ্দুসকে পুলিশ আটক করে। ১০ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলের গোপালপুর নবীন বাজার যমুনার তীর থেকে ৩৬ জামায়াত নেতা-কর্মীকে আটক করে পুলিশ। ১২ সেপ্টেম্বর সাতক্ষীরা জেলা জামায়াত নায়েবে আমীর শেখ নূরুল হুদাকে পুলিশ নিজ বাসা থেকে আটক করে। ১৬ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলের কালিহাতীর সাকরাইল থেকে পুলিশ ৭ মহিলাসহ ১০ জামায়াত নেতা-কর্মীকে আটক করে।
জাপা : ১৪ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে জেলা ট্রাক মালিক সমিতির নেতারা অভিযোগ করে যে, জাপা নেতা জয়নাল আবেদীন তাদের জমি দখল করে নেয়।
ইউপিডিএফ : ২৫ সেপ্টেম্বর খাগড়াছড়ির মানিকছড়ির বড়ডলু এলাকায় ইউপিডিএফ প্রসীত গ্রুপের সাথে সোনাবাহিনীর গোলাগুলিতে মেজর আনিসুর রহমান আহত হয়। ঘটনার পর ইউপিডিএফ এক সদস্যকে ১টি এসএমজিসহ আটক হয়।
জেএমবি : ২২ সেপ্টেম্বর ঢাকার একটি আদালত ২০০৫ সালের ১৭ আগষ্ট দেশ ব্যাপী সিরিজ বোমা হামলা মামলায় জেএমবির সদস্য আব্দুল্লাহ আল-সুহাইল, হাবিবুর রহমান হাবিব, মুস্তাফিজুর রহমান মুছা, আব্দুর রহমান মাসুদ ও নূরুল ইসলাম উজ্জ্বল ওরফে জুবায়েরকে ১২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ৩০ হাজার টাকা দণ্ড দেয়। ২৪ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলের একটি আদালত জেএমবির সদস্য আবু সাঈদকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড সাথে ১০ হাজার টাকা জরিমানা, জুয়েল মিয়া ও মোসলেম উদ্দিনকে সাড়ে ৪ বছরের কারাদন্ড এবং অপর আসামী আতাউর রহমান খানকে ২ বছরের কারাদণ্ড দেয়। [সমাপ্ত]

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ