রবিবার ১৭ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

ক্যাসিনোয় জড়িত কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ে জানিয়ে কাজ হয়নি -ডিএসসিসি মেয়র

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) একটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসার বিষয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে দুই মাস আগে জানিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন সিটি মেয়র সাঈদ খোকন। তবে তার দাবি, মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। গতকাল সোমবার নগর ভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন খোকন। ডিএনসিসির জনসংযোগ বিভাগের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।
গত বুধবার থেকে মূলত রাজধানীতে ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান শুরু হয়। সরকারের উচ্চপর্যায়ের নির্দেশে ওই দিন মতিঝিলের ইয়ংমেনস, ওয়ান্ডারার্স, মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্র ও বনানীর গোল্ডেন ঢাকা ক্লাবে অভিযান চালানো হয়। ওই দিন এসব ক্লাব সিলগালা করে দেওয়া হয়। মতিঝিলে অভিযানের সময় ইয়ংমেনস ক্লাবের সভাপতি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গুলশানের বাসা থেকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করা হয়। শুক্রবার রাতে কলাবাগান ক্রীড়া চক্র ও ধানমন্ডি ক্লাবে অভিযান চালানো হয়। কলাবাগানে অভিযানের আগে ক্লাবের সভাপতি শফিকুল আলমকে (ফিরোজ) অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করা হয়। ধানমন্ডি ক্লাবের বার শুক্রবার সিলগালা করে দেয় র‌্যাব। রোববার ঢাকা ছাড়া চট্টগ্রামেও ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান চলে।
ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান শুরুর পর ঢাকা দক্ষিণ সিটির একটি ওয়ার্ডের এক কাউন্সিলরের জড়িত থাকার বিষয়টি গণমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনায় আসে। ওই কাউন্সিলর এখন দেশের বাইরে আছেন।
গতকাল ডিএনসিসি মেয়রকে ওই মেয়রের অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসার বিষয়ে জানতে চাইলে সাঈদ খোকন বলেন, ‘ওই কাউন্সিলরের দায়িত্বজ্ঞানহীন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে দুই মাস আগে পত্র পাঠিয়েছি। কিন্তু এর কোনো অগ্রগতি দেখতে পাইনি।’
সাঈদ খোকনের এ বক্তব্যের বিষয়ে স্থানীয় সরকার, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম ওমরাহ পালনের জন্য এখন সৌদি আরব আছেন। এখন তাঁর দায়িত্বে থাকা প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য  বলেন, ‘মন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে দায়িত্ব পালন করছি বটে তবে আমার বিভাগ তো ভিন্ন। আমি চলতি বিভিন্ন কাজ সম্পর্কে অবগত। দুই মাস আগে এ ধরনের কোনো চিঠি এসেছিল কি না এটা সংগত কারণেই আমার জানা নেই।’
অবৈধ ক্যাসিনো বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় চলমান শুদ্ধি অভিযানকে সাধুবাদ জানিয়ে গতকাল সাঈদ খোকন বলেন, এ অভিযান অব্যাহত থাকবে । সারা দেশবাসী এ অভিযানকে সমর্থন জানিয়েছেন। এ অভিযানের সফল পরিসমাপ্তি ঘটবে বলে আমি আশা করি।
সাঈদ খোকন বলেন, পবিত্র রমজান মাসে মদ জুয়া খেলাসহ অনৈতিক কার্যকলাপ পরিচালনা থেকে বিরত থাকার জন্য আমি ক্লাব গুলির প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলাম। এ বিষয়ে প্রচারণা চালাই কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। এবার কাজ হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ