বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

দেশের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিতে চাই : রশিদ খান

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশকে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শিরোপা জয় করতে চায় আফগানিস্তান। ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে প্রথম থেকেই ব্যাটে-বলে ভালো পারফর্ম করেছে দলটি। টি- টোয়েন্টিতে টানা ১২ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়েছেন এই টুর্নামেন্টেই। তবে এরপরেই টানা দুই ম্যাচ হেরেছে আফগানরা। তাই ফাইনালের আগে কিছুটা চাপে রয়েছে তারা। ফাইনালের আগের দিন গতকাল মিরপুরে অনুশীলন করে আফগানিস্তান। অনুশীলনের আগে ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন আফগান অধিনায়ক রশিদ খান। ইনজুরির কারণে তার খেলা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। তাই নিজের ইনজুরি নিয়ে প্রথমেই জানান তিনি। রশিদ খান বলেন, ‘এখনো নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছিনা। গতকাল আর আজকে বেশ কিছু কাজ করেছি। আশা করছি সেগুলো কাজ করবে। আগামীকালই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবো।’ ফাইনালে আফগানিস্তান ফেভারিট কিনা এমন প্রশ্নে আফগান অধিনায়ক বলেন, ‘আমরা গত ৪-৫ বছর ধরে ভালো ক্রিকেট খেলছি, বিশেষ করে টি-টোয়েন্টিতে। আমরা যদি সেরাটা  খেলতে পারি তবে যেকোনো দলকে হারাতে পারি। দলে প্রতিভাবান কিছু ক্রিকেটার আছে। শুধুমাত্র শান্ত থেকে পারফর্ম করতে হবে।’ এ সময় রশিদ খান জানান, নিজের দেশের জন্য উজাড় করে দিতে চাওয়ার কথা। সকল ক্রিকেটারের এটা করা উচিৎ। তিনি বলেন, ‘আমার বল করা উচিৎ নয়। কিন্তু দলের প্রয়োজনে আপনাকে প্রস্তুত থাকতে হবে। আর যদি তা নিজ দেশের জন্য হয়, তাহলে তো আরও বেশি জরুরি। আমি আজগর আফগানের কথা বলবো। বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের সময় অপারেশন থেকে ফিরে চার দিনের মাথায় এসে সে বললো যে আমি  খেলবো। অন্যদের শিক্ষা নেওয়া উচিৎ। আমি মনে করি ম্যাচ খেলার জন্য যদি ১০ ভাগও ফিট থাকি তবে খেলা উচিৎ। আমি খেলার পক্ষেই কথা বলবো। কারণ আমি দেশকে ভালবাসি।’ টানা দুই ম্যাচ হেরে কিছুটা ব্যাকফুটে আফগানিস্তান। কিন্তু অধিনায়ক জানান, ‘আমি মনে করি না আমরা পিছিয়ে আছি। কালকের ম্যাচের দিকে মনযোগী হতে চাই। লিগ পর্বের ম্যাচ অতীত হয়ে গেছে। সবচেয়ে বড় কথা হলো এটা ফাইনাল ম্যাচ। আগে জিতেছেন না হেরেছেন এটা কোনো ইস্যু তৈরি করে না।’ চট্টগ্রামে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ম্যাচেই হ্যামস্ট্রিংয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন আফগান অধিনায়ক, বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা লেগ স্পিনার রশিদ খান। ৩ ওভার বল করেই মাঠ ছাড়তে হয়েছিল তাকে। এরপরই শঙ্কা দেখা দেয়, ঢাকায় ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে খেলতে পারবেন কি না। যদি রশিদ খান খেলতে না পারেন, তাহলে পরিবর্তে দলে এমন কে আছে, যিনি তার ব্যাকআপ হিসেবে দায়িত্ব নিতে পারবেন? জবাবে রশিদ খান বলেন, ‘আমি মনে করি আমাদের যথেষ্ট ব্যাকআপ আছে। আমাদের বেশ কিছু ভালোমানের স্পিনার রয়েছেন। যেমন মুজিব-উর রহমান, মোহাম্মদ নবি। এছাড়া রয়েছেন শরাফউদ্দিন আশরাফ। তিনি বাঁ-হাতি স্পিনার এবং বেশ ভালো একজন অলরাউন্ডার।’ ত্রিদেশীয় সিরিজে অনুষ্ঠিত হয়েছে দুই পর্ব। প্রথমটি ঢাকায় এবং দ্বিতীয়টি চট্টগ্রামে। মজার ব্যাপার হচ্ছে ঢাকায় প্রথম পর্বের দুই ম্যাচেই জয় পেয়েছে আফগানরা। কিন্তু চট্টগ্রামে গিয়ে দুই ম্যাচেই হেরেছে তারা। আবার ঢাকায় ফিরে এসেছে ত্রিদেশীয় সিরিজ। ফাইনাল ঢাকায় বলে আফগান অধিনায়ক জয়ের ব্যাপারে কতটা আশাবাদী? জানতে চাইলে রশিদ খান বলেন, ‘আমরা চট্টগ্রামে দুই ম্যাচেই হেরেছি। তবে আমরা আবার ঢাকায় ফিরে এসেছি। যেখানে দুই ম্যাচই জিতেছিলাম। আমরা এই ব্যাসিক নিয়েই এখন কাজ করতে চাই একই সঙ্গে ক্রিকেট উপভোগ করতে চাই। এছাড়া আমরা কিছু নতুন খেলোয়াড়কে সুযোগ করে দিতে চাই। যদিও, এটা ফাইনাল এবং আমরা চাই শক্তিশালী একটি দল নিয়ে মাঠে নামতে। কারণ, প্রপিক্ষ খুবই শক্তিশালী। মোট কথা, ঢাকায় প্রথম দুই ম্যাচে জয়ের ধারাবাহিকতাই ধরে রাখার লক্ষ্য আমাদের।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ