বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ছড়া/কবিতা

গণতন্ত্র ! জনতন্ত্র
-শাহিদা ফেরদৌসি

ওহে বাংলা মা ! তোমার আচলে রক্তের আচড় ঘুচলোনা।
আমি স্তব্ধ হয়ে দেখছি কত, নীরব মূর্তি চলছে শত, নেই কোন প্রতিবাদ।
শত হানাহানি, মিছে কানাকানি, ভাঙ্গেনা তবু যে বাধ।
দোষ করে কে ? বিচার হয় কার ? জাতির হৃদয় ভাঙ্গে বারবার।
কার মুখে শোনে কে কার কথা, কে বোঝে নিরিহ জাতির ব্যাথা,
সব বোঝে ছলনা, মিথ্যার ললনা।
ক্ষমতা নিয়ে দলাদলি করে ,পড়ে আছে সব বোকাদের ভিড়ে?
সেথা গণতন্ত্রের গণধর্ষণ, চলছে দেখ ভাই।
নিজেরা নিজেকে ত্যাগ করে ঠাসে, বলে বেড়ায় যে দেশ ভালবাসে,
গণতান্ত্রিক দেশটাকে ওহে, বাচিঁয়ে দেখাও ভাই।
ক্ষমতাসীন আর বিরোধিরা, উৎসবে মেতে ওঠে বিবাদেরা
গণতন্ত্র চিৎকার করে, বাঁচাবার কেহ নাই।
ক্ষমতায় এলেই বাধবো বাসা, প্রতিটি দলেরই সুপ্ত আসা,
গণতন্ত্র কে ঢাকতে তারা, জনতাকে ঢেকে দেয়।
ওহে দেশ তুমি বলো মানুষে মানুষে, বিদ্রোহ এ কোন ?
আর কতকাল চলতে থাকবে, মুক্তি আন্দোলন ?
ওগো আমার সোনার দেশ,
আজ তোমার কাছে আমরাই অসহায়।
বলো আর কতকাল পড়বে আঘাত, জনতন্ত্রের গায় ?
মাগো তোমার সে মহা স্বাধীনতা, শরমে ঢেকেছে মুখ।
অসহায় অবুজ এ জাতির, দেয়ালে ঠেকেছে বুক।


নির্বেদ
-মাকসুরা বিনতে হারেস মিরা

সমুদ্র পরিমাণ আজ অজ্ঞতা আমার
বুঝিয়াছি আমি নিজে,
অনেকগুলো বছর কেটে গেলো অবহেলায়;
সময়ের হিসেব পাইনি কভু খুঁজে।
অপাত্রে রেখেছিলাম জীবনের শিক্ষাগুলো
যা পরকালে দেবেনা আমায় আলো,
দুনিয়ামুখী এত ডিগ্রী নিয়ে কীইবা হবে বলো।
               
অতীতগুলো যদি কাটতো আমার
কোর’আন হাদিসের মাঝে -
অন্ধকার কবরে পেতাম নূর,
দিত যাহা কাজে।
শেখা হয়নি আরবি শব্দগুচ্ছ,
শেখা হয়নি এই ভাষা
কি করে দেব এর জবাবদিহিতা
প্রশ্নবিদ্ধ মন হয়ে গেছে নিরাশা।

অন্তঃকবরে মালাইকারা যখন বলবে আমায়,
আছে কি আখিরাতমুখী দক্ষতা?
মূর্খ আমি, পেশ করব কীইবা;
নেইযে কোনো যোগ্যতা।
ভীত হৃদয় এই ভেবে খুব,
আজই যেতে হয় যদি ওপারে;
কীইবা নেব সঙ্গেতে মোর
সাথী হবে যাহা পরপারে।
                     
নেই যে এলেম দ্বীনদারিতাও
কীইবা আছে আজ
বিরাণ আত্মা তুচ্ছ করে নিজেকে বলছে-
আছে কি কোনো লাজ?
দোটানা মন ভেবে দেখে নেই যে হাতে সময়
যতটুকু নিঃশ্বাস বাকি রয়েছে
করা যাবে না এর অপচয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ