শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

এখনও ঢাকার বাইরে ডেঙ্গু  রোগীর সংখ্যা বেশি

 

 

স্টাফ রিপোর্টার : গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টা থেকে ৫ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত নতুন করে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৭৮৮ জন। এরমধ্যে রাজধানী ঢাকায় রোগীর সংখ্যা ৩৩১ জন আর রাজধানীর বাইরে ঢাকা বিভাগসহ সারাদেশে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫৭ জন। ৪ সেপ্টেম্বর বুধবার এ সংখ্যা ছিল ৮২৯ জন। এরমধ্যে ঢাকার ভেতরে ডেঙ্গু রোগী ছিলেন ৩৪৫ জন। ঢাকার বাইরে ছিলেন ৪৭৫ জন। এই হিসাবে এখনও ঢাকার বাইরে ঢাকার চেয়ে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেশি। স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার খুলনায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে এক শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। 

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে ছাড়পত্র নিয়েছেন এক হাজার পাঁচ জন। রাজধানী ঢাকার হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৫৯১ জন। বিপরীতে ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলো থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৪১৪ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক ডা. আয়শা আক্তার জানন, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৪ শতাংশ কমেছে।

তবে, কন্ট্রোল রুমের হিসাব থেকে দেখা যায়, সেপ্টেম্বরের প্রথম পাঁচদিনে আক্রান্ত হয়েছে তিন হাজার ২৫৬ জন। আর সারাদেশে এই মুহূর্তে ভর্তি থাকা মোট রোগীর সংখ্যা তিন হাজার ৩৭১ জন। এরমধ্যে রাজধানী ঢাকায় রয়েছেন এক হাজার ৭২৯ জন আর ঢাকার বাইরে রয়েছেন এক হাজার ৬৪২ জন। সারাদেশে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন শতকরা ৯৫ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী। এদিকে, রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) ডেথ রিভিউ কমিটি ৯৬টি মৃত্যু পর্যালোচনা করে মোট ৫৭ জনের মৃত্যু ডেঙ্গুতে হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে। 

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে ছাড়পত্র নিয়েছেন এক হাজার পাঁচ জন। রাজধানী ঢাকার হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৫৯১জন। বিপরীতে ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলো থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৪১৪ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক ডা. আয়শা আক্তার জানন, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৪ শতাংশ কমেছে। তবে, কন্ট্রোল রুমের হিসাব থেকে দেখা যায়, সেপ্টেম্বরের প্রথম পাঁচদিনে আক্রান্ত হয়েছে তিন হাজার ২৫৬ জন। আর সারাদেশে এই মুহূর্তে ভর্তি থাকা মোট রোগীর সংখ্যা তিন হাজার ৩৭১ জন। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকায় রয়েছেন এক হাজার ৭২৯ জন আর ঢাকার বাইরে রয়েছেন এক হাজার ৬৪২ জন। সারাদেশে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন শতকরা ৯৫ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী। এদিকে, রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) ডেথ রিভিউ কমিটি ৯৬টি মৃত্যু পর্যালোচনা করে মোট ৫৭ জনের মৃত্যু ডেঙ্গুতে হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে। কন্ট্রোল রুম জানায়, চলতি বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশে ডেঙ্গুতে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৭৪ হাজার ৩৫৩ জন। এরমধ্যে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফেরা মোট রোগীর সংখ্যা ৭০ হাজার ৭৯০ জন।

 

খুলনায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত শিশুর মৃত্যু

খুলনা অফিস : খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত শ্রাবন্তী (৫) নামের শিশু মারা গেছে। বৃহস্পতিবার বেলা ৩টা ২০ মিনিটে সে মারা যায়। এ নিয়ে খুলনায় নয় জনের ডেঙ্গুতে মৃত্যু হয়েছে।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক ফিজিসিয়ান (আরপি) ডা. শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস জানান, শ্রাবন্তী যশোর জেলার বাঘার পাড়ার রামচন্দ্রপুরের মো. সোহাগের মেয়ে। ৩১ আগস্ট সন্ধ্যায় খুমেকে ভর্তি করা হয় শ্রাবন্তীকে। সে খুমেকের আইসিইউতে ভর্তি ছিলো।

এদিকে খুলনা বিভাগে পাঁচ হাজার ছাড়িয়ে গেলো ডেঙ্গু রোগী। বর্তমানে জেলায় ৮৪ জনসহ বিভাগে মোট চিকিৎসাধীন ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা পাঁচ হাজার ৪৩ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় খুলনায় ৩০ জন, বাগেরহাটে সাতজন, সাতক্ষীরায় ১৮ জন, যশোরে ৬৭ জন, ঝিনাইদহে চারজন, মাগুরায় ছয়জন, নড়াইলে তিনজন, কুষ্টিয়ায় ১৭ জন এবং মেহেরপুরে পাঁচজন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হলেও চুয়াডাঙ্গা জেলায় কোন লোক ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়নি বলে স্বাস্থ্য পরিচালক দপ্তরের সূত্রটি জানিয়েছে।

চৌগাছায় ২৪ ঘন্টায় ৩১

ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত

চৌগাছা (যশোর) সংবাদদাতা : সারাদেশের ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কমতে থাকলেও যশোরের চৌগাছায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘন্টায় (এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত) ৩১ জন নতুন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। উপজেলার একমাত্র সরকারি মডেল হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর চিকিৎসার জন্য মাত্র ৭টি সিটের ব্যবস্থা করা হয়েছে। রোগীর সংখ্যা এভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ হিমশিম খাচ্ছেন। এদিকে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় শহরের বাসিন্দাদের মধ্যেও চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।

জানাযায়, ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৩১ রোগীর মধ্যে হাসপাতালে সনাক্ত করা হয়েছে ১৭ জন এবং ক্লিনিকে ১৪ জন। আক্রান্ত এসব রোগীর মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ২৬ জন। এবং বাকিদের উন্নত চিকিৎসার জন্য বিভিন্ন হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। উপজেলায় এপর্যন্ত মোট ডেঙ্গু আক্রান্ত ২১৪ জন রোগীর মধ্যে হাসপাতলে ১৪১ এবং ক্লিনিকে ৭৩ জন রোগী সনাক্ত করা হয়েছে।

চৌগাছা উপজেলা সরকারি মডেল হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মাসুদ রানা জানান, রাজধানীতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কমতে থাকলেও চৌগাছায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখা ক্রমশঃ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে, আমাদের হাসপাতালে যারা ভর্তি আছেন তারা এখন আশঙ্কামুক্ত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ