রবিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

কবিতা

আমার অপারগতাগুলি ক্ষমা করো
-রওশন আরা স্বপ্না

আমাকে তোমরা প্লিজ আমাকে ভুলতে বলো না,
সে আমি পারবো না।
যা ধারণ করেই আমি
জীবন মরণ পৃথিবীকে বুঝেছি,
তা আমি ছাড়বো না।
দয়া করো,আমি যে তা পারবো না।

আমাকে সংকীর্ণ হতে বলো না,
সে আমি পারবো না।
আসলে পারতেই যে চাইবো না।
প্রভুর প্রতিনিধি এই আমি,
পরিচয় ভুলতে বলো না।
ক্ষুদ্রতায় আর নীচতায়
নিজেকে বাধতে বলো না,
দুঃখিত, সেক্ষেত্রে তোমাদের ধার আমি ধারবো না।
তোমরা আমাকে অপরের দোষ খুঁজতে বলো না।
আমাকে এতদিনে চিনে
এতটুকু কেন বুঝলে না?
সেটা যে আমি পারব না।

ওই আকাশের সমান উদার পথে হেঁটে হেঁটে
বেড়ে উঠা আমি;
হঠাৎ করে থামিও না।
আমাকে চলতে দাও অসীমের পথে,
আমি তোমাদের ভাত তো কাড়বো না।
প্লিজ,আমাকে ছাড়ো।
শোন, সেক্ষেত্রে তোমাদের পথ আমি মারবো না।

আমাকে ছেড়ে দাও জ্ঞান, ক্ষমা সুন্দরের কাছে
প্রভুর ভালবাসা আর আনুগত্যের কাছে।
মানুষের ভালবাসার কাছে।
জীবনের কাছে,
জান্নাতের কাছে।
শোন, আমি বেশ ভাল আছি।
দিবানিশি  মুস্তাকীমের পথ যাচি।
জানি তো,হেদায়াত ছাড়া বড় পাওয়া কি আছে!
হেদায়াত চেয়ে চেয়ে বেঁচে থাকে মোর,
আর প্রাণ ছাড়া কি প্রাণী বাঁচে?

তাই আমার পিছনে লেগো না।
ছেড়ে দাও।
আঁধারের বোটা থেকে আলো ছিড়ে
সেই আলোতে বাঁচতে দাও।
ঠিক আছে, সেই ভাল, দূরে রবো।
কিন্তু হেদায়াত হারাতে পারবো না।

তোমাদের সাথে শিকড়টা না হয় গাড়বো না।
যদিও অনেক কাছের তোমরা আমার।
কি আর বলো করা,
সত্যের চেয়ে সুন্দরের চেয়ে
তোমাদের ভালবেসে হারবো না।
সত্যিই, সেটা যে আমি পারবো না।

চেনা
-লামিয়া তানজীম লিমু

একটি অনুভূতিহীন সকালের
রোদ্র উত্তাপ নিয়ে, প্রতিনিয়ত,
খুঁজে ফিরতে হয় আমাকে।
শুধু চিনে নিতে-
এই অতি পরিচিতার আড়ালে
মুখোশধারী অচেনা আমিত্বকে।
শুধু চিনে নিতে-
এই সাদা বা শ্যাম চামড়ার গভীরের,
গাঢ় কালো ও কুৎসিত রূপটাকে।
শুধু চিনে নিতে-
হাসির মায়ায় আচ্ছাদিত
নিকৃষ্ট আত্মার ভয়াল আগ্রাসনকে।
শুধু চিনে নিতে-
এই লিপ্সু, স্বার্থান্বেষী আর
কাপুরুষোচিত এই আমি কে।
একটি বার যদি চিনে নিতে পারি,
জানি কেটে যাবে,
এই জনরোলে বিষাদের দাগ,
যত কলঙ্ক, যত বীভৎস ইতিহাস
ঠিক হয়ে যাবে বিদীর্ণ,
হয়ে যাবে অপারগ।
জানি যদি সত্যি চিনে যাই
আমার পশুত্ব ও হিংস্রতা,
স্ব ধিক্কারে আর হীনমন্যতায়
তবে নুয়ে যাবে হিসেবের খাতাটা।
ঠিক রূপান্তরিত হবে আমার আমি
অমানুষ থেকে মানুষ হয়ে,
জন ও জনতার আমিতে মিশে।
বিবেকে কাঠগড়ায় হবে ফের
সত্যের ও সততার জয়,
এক মুহূর্তের দীর্ঘশ্বাসে।
চেতনারা খুঁজে পাবে স্বাধীনতা
কারাবন্দিত্ব মানবিকতায়।
বিশ্বাসেরা ফিরে পাবে নীড়,
মৃতপ্রায় বিবেকের দোটানায়।


প্রতিবাদের অন্তরায়
-তাইয়্যেবা বিনতে বেলাল

আমি বিশ্বযুদ্ধ দেখিনি
কিন্তু, সিরিয়া ইরানীদের আর্তনাদ শুনেছি,
আমি মুক্তিযুদ্ধ  দেখিনি
কিন্তু জম্মু-কাশ্মীরের আহাজারী দেখেছি।
আজ বিশ্ব মুসলিম শান্ত
আমার ভাইবোনদের রক্তের বন্যা দেখেই তারা ক্ষান্ত।
কেও কিছু বলছে না কেন!! মুসলিম বিশ্ব আজ কোথায়!!
কেন তারা করছে না কোনো প্রতিবাদ!!
আমি অভাগা এত কিছু দেখার পরেও রয়েছি নির্বাক।
বার বার চিৎকার  করতে গিয়েও, করতে পারছিনা চিৎকার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ