শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

অব্যাহত দরপতনে পুঁজি হারাচ্ছে লাখ লাখ বিনিয়োগকারী

স্টাফ রিপোর্টার : দেশের শেয়ারবাজার বিনিয়োগকারীদের জন্য কোনো সুখবর দিতে পারছে না। দিন যতই যাচ্ছে ততই খারাপের দিকে যাচ্ছে শেয়ারবাজার। অব্যাহত দরপতন প্রতিনিয়ত বিনিয়োগ করা পুঁজি হারাচ্ছেন লাখ লাখ বিনিয়োগকারী। কোনো কিছুই শেয়ারবাজারকে পতনের হাত থেকে রক্ষা করতে পারছে না। দিনের পর দিন দরপতন হওয়ায় ধীরে ধীরে তলানিতে যাচ্ছে শেয়ারবাজার।
গতকাল সোমবার আগের কার্যদিবসের ধারাবাহিকতায় সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসও দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবক’টি মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। এর মাধ্যমে টানা চার কার্যদিবস দরপতন হলো।
এতে দেড় মাসের মধ্যে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক সর্বনিম্ন অবস্থানে চলে এসেছে। সূচকের পাশাপাশি এদিন লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১০০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২০৯টির। ৪৫টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমায় ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৩৭ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৩৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাকি দুটি সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ ৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ১৭২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসই-৩০ সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৭৭৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।
সূচকের বড় পতন হলেও এদিন ডিএসইতে লেনদেন কিছুটা বেড়েছে। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৪৪২ কোটি ৯০ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩৩২ কোটি ৪০ লাখ টাকার। সে হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ১১০ কোটি ৫০ লাখ টাকা। বাজারটিতে টাকার পরিমাণে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে মুন্নু সিরামিকের শেয়ার। কোম্পানিটির ৩৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশনের ১৯ কোটি ৩ লাখ টাকার লেনদেনে হয়েছে। ১৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে স্টাইল ক্রাফট।
এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে- জেএমআই সিরিঞ্জ, আইটিসি, সিলকো ফার্মাসিউটিক্যাল, ওয়াটা কেমিক্যাল, বিকন ফার্মাসিউটিক্যাল, ন্যাশনাল পলিমার এবং মুন্নু জুট স্টাফলার্স।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৮৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৪১২ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হযয়েছে ১৪ কোটি ২৭ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৪৭টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ১৫৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩১টির।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ