বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

অপরাধ স্বীকার ধর্ষক শিঞ্জন রায়ের

খুলনা অফিস : খুলনার নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির এলএলবির ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ এবং সাত মাসের গর্ভবতী মামলায় গ্রেফতার করা কমিশনার প্রশান্ত কুমার রায়ের ছেলে শিঞ্জন রায়ের এক দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত মো. শাহীদুল ইসলাম আসামী শিঞ্জন রায়কে খুলনা জেলা কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এদিকে পুলিশ এই মামলার বাদীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে।
সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মমতাজুল হক জানান, জিজ্ঞাসাবাদে শিঞ্জন রায় ঘটনা প্রেমিকার সাথে স্বামী-স্ত্রী হিসাবে বসবাস করার কথা স্বীকার করেছে এবং মামলার অনেক আলামত তারা জব্দ করেছে। স্বামী-স্ত্রী হিসাবে বসবাস করাসহ তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে ভ্রমণ করার প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ। যেসব বাড়ীতে তারা স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বসবাস করতো তারাই পুলিশের কাছে সাক্ষ্য দিয়েছে শিঞ্জন রায় ও তার প্রেমিকাকে তারা স্বামী-স্ত্রী হিসাবে বসবাসের জন্য ঘরভাড়া দিয়েছিলেন। শিঞ্জন রায়ের প্রেমিকার বান্ধবীর কাছে সম্প্রতি কুয়াকাটা ভ্রমণের কিছু ছবি পুলিশ জব্দ করে আদালতে জমা দিয়েছে। পুলিশ  হেফাজতে শিঞ্জন রায় সব ঘটনা স্বীকার করেছে, তবে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিতে রাজি হয়নি।
সোনাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মমতাজুল হক জানান, এই মামলার প্রমাণাদি যা পাওয়া গেছে তাতে স্বীকারোক্তির কোনো প্রয়োজন নাই। তিনি জানান, সব থেকে বড় প্রমাণ মেয়েটি সাত মাসের গর্ভবতী দৃশ্যমান এবং শিঞ্জন রায়ও তা অস্বীকার করছে না।
এদিকে আদালত সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা  এস আই তৌহিদুর রহমান  আদালতের কাছে শিঞ্জন রায়ের পাসপোর্ট জব্দ করার অনুমতি প্রার্থনা করেছেন। এই সূত্র হতে জানা গেছে, বৌ-ভাত অনুষ্ঠানের পর শিঞ্জন রায় তার নতুন স্ত্রীকে নিয়ে হানিমুনে ভারত যাওয়ার কথা ছিল। সেই হিসাবে দু’জনার পাসপোর্টে ভিসাও লাগানো রয়েছে। এই সূত্রের ধারণা বৌ-ভাত পার হয়ে গেলে শিঞ্জন রায়ের টিকিটিই কেউ ধরতে পারত না।
খুলনা মুজগুন্নী কর কমিশনার কার্যালয়ে গেলে অফিস থেকে বলা হয়, তিনি ছুটিতে রয়েছেন। মুজগুন্নী আবাসিক এলাকার ১৭নং রোডের ২৩২ নং মৃন্ময়ী নামের পাঁচতলা বাড়ীতে গিয়েও কর কমিশনারকে পাওয়া যায়নি। সাংবাদিক পরিচয় শুনে এই বাড়ীতে প্রবেশাধিকারও পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য, শিঞ্জন রায় খুলনার কর কমিশনার সুশান্ত কুমার রায়ের কনিষ্ট ছেলে। প্রেমিকা সাত মাসের অন্তসত্ত্বা থাকার পরও ১৪ আগস্ট অন্যত্র বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। কিন্তু ১৬ আগস্ট তার বৌভাতের নির্দিষ্ট দিনের আগে প্রেমিকার দায়ের করা মামলায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ