শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

এডিস নিধনে ঢাকা উত্তরে দিনে আড়াই ঘণ্টার অভিযান

স্টাফ রিপোর্টার : সারা দেশে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপের মধ্যে মশাবাহিত রোগের জীবানুবাহক এডিস মশা নিধনে ২০ দিনের ‘চিরুনি অভিযানে’ নেমেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন-ডিএনসিসি। গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর গুলশান-১ এর শহীদ ফজলে রাব্বী পার্কে অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ অভিযানের উদ্বোধন করেন। আগের অভিযানে মচকানো পা নিয়ে ক্রাচে ভর দিয়ে অনুষ্ঠানে আসেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ঢাকা উত্তরের পুরনো ৩৬টি ওয়ার্ডকে ১০টি সেক্টরে ভাগ করা হয়েছে, প্রতিটি সেক্টরে রয়েছে ১০টি সাব সেক্টর। আগামী ২০ দিন এইডিসের লার্ভা নিধনে প্রতিদিন আড়াই ঘণ্টা অভিযান পরিচালনা করা হবে। ২০০টি ফগার মেশিন ও একহাজার ৬০০ প্রশিক্ষিত কর্মী অভিযানে থাকবে।
“কোনো বাড়িতে লার্ভা পাওয়া গেলে আমরা সেখানে স্টিকার লাগিয়ে দিয়ে আসব। তারপর ৭ থেকে ১০ দিন পরে আবার যাব। তারপরও সেখানে লার্ভা পাওয়া গেলে জরিমানা করা হবে।”তবে সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও বাণিজ্যিক ভবনগুলোতে লার্ভা পেলে তাৎক্ষণিক জরিমানা করা হবে বলে সতর্ক করে দেন আতিকুল।
ডিএনসিসি মেয়র বলেন, “সিটি করপোরেশনে যদি কোনো সমস্যা থাকে, তাহলে আপনারা আমাকে দোষারোপ করতে পারেন। ম্যাজিস্ট্রেটকে বলেছি, দরকার পড়লে মেয়রের নামেও কেস করবা... তাদেরকেও জরিমানা করবা। আইন সবার জন্য সমান। প্রতিষ্ঠানে লার্ভা পেলে ছাড়ব না কিন্তু।”
কাউন্সিলরদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “কেউ ঘরে বসে থাকবেন না। মাঠে নেমে চিরুনি অভিযান সফল করুন। বাড়ি বাড়ি গিয়ে এডিস মশা মারা একটা হিউজ টাস্ক, দুরুহ ব্যাপার।”
অভিযানে নগরবাসীর সহযোগিতা চেয়ে তিনি বলেন, “বাসার সামনে, বাড়ির পেছনে, অফিসের ছাদে বা দুই বাড়ির মাঝে যে নো ম্যানস ল্যান্ড আছে, সেটা কিন্তু সিটি করপোরেশনের মধ্যে পড়ে না। দেখা যাচ্ছে, বাড়ির সামনেরটা ছিমছাম। কিন্তু পেছনে অসুন্দর.গর্ত। এমনই এক গর্তে পড়ে আমার পা মচকে গিয়েছে।”
বসতবাড়ির আশপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে নগরবাসীর প্রতি অনুরোধ জানান অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ