বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

ঈদ স্পেশাল ট্রেন সিডিউল বিপর্যয় স্টেশন মাস্টার লাঞ্ছিত

লালমনিরহাট সংবাদদতা : বাংলাদেশ রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগের সাথে যুক্ত হওয়া ঈদ স্পেশালসহ বেশ কয়েকটি ট্রেনে ভয়াবহ শিডিউল বিপর্যয় ঘটছে। নির্ধারিত সময়ের থেকে প্রায় ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও ট্রেনের দেখা না পেয়ে দুর্ভোগে পড়েছে যাত্রীরা। এদিকে শিডিউল বিপর্যয়ের কারণে গত সোমবার সন্ধ্যায় স্টেশন মাস্টারের কক্ষ ঘেরাও করে  বিক্ষোভ করে এবং স্টেশন মাস্টারকে লাঞ্ছিত করে বিক্ষুব্ধ যাত্রীরা।
জানা গেছে, ঈদ স্পেশালসহ বেশ কয়েকটি ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় দেখা দেয়। এ কারণে উত্তরাঞ্চল থেকে প্রতিটি ট্রেন ঢাকা পৌঁছাতে এবং ঢাকা থেকে উত্তরাঞ্চল যেতে অনেক বেশি সময় লাগছে। ফলে ট্রেনের এ শিডিউল বিপর্যয়ের সৃষ্টি হয়। গত রোববার রাত থেকে লালমনিরহাট স্টেশনে ঢাকামুখী শতাধিক যাত্রী অপেক্ষা করে ট্রেনের জন্য। গত সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ওই স্টেশনে রংপুর এক্সপ্রেস নামে একটি লোকাল ট্রেন আসে। ঢাকামুখী ওই যাত্রীরা মনে করে এটি কমলাপুর রেল স্টেশনের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। কিন্তু তারা যখন জানতে পারে ওই রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি কমলাপুর রেলস্টেশনের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে না। তখন তারা ক্ষোভে লালমনিরহাট রেলস্টেশন মাস্টারের কক্ষ ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। ওই সময় স্টেশন মাস্টারের সঙ্গে যাত্রীদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে জি আর পি থানার পুলিশ ও রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় ম্যানেজার এসে বিক্ষুব্ধ যাত্রীদের শান্ত করেন। পরে রাত সাড়ে ৯টায় স্টেশনে ঢাকাগামী ঈদ স্পেশাল ট্রেন এসে পৌঁছায়। এর ঘন্টা খানেক পর দুইটি ট্রেন ঢাকা অভিমূখে যাত্রা করে। রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় ম্যানেজার মুহাম্মদ শফিকুর রহমান জানান, লালমনি এক্সপ্রেস, রংপুর এক্সপ্রেস ও ঈদ স্পেশাল ট্রেন ২৪ ঘণ্টার শিডিউল বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। ঢাকা থেকে ট্রেন দেরিতে আসায় এই শিডিউল বিপর্যয় হচ্ছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। অপরদিকে বিনা টিকিটে রেল ভ্রমণের দায়ে ২২০ জন যাত্রীর কাছ থেকে জরিমানাসহ ৮৩ হাজার ৪শ’ টাকা ভাড়া আদায় করেছেন লালমনিরহাট বিভাগীয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। গত সোমবার  সকাল থেকে রাত পর্যন্ত লালমনিরহাট বিভাগীয় রেলওয়ের বিভিন্ন স্টেশনে দুইটি আন্তঃনগর ট্রেনে অভিযান চালিয়ে এ জরিমানাসহ ভাড়া আদায় করা হয়। এ সময় ট্রেনের ছাদের ওপরে ভ্রমণ করা যাত্রীদেরও নামিয়ে দেওয়া হয়। লালমনিরহাট রেলওয়ের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা (ডিটিএস) শওকত জামিল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ