মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

উত্তেজনা ছড়ানোর পর ড্রতেই শেষ হলো লর্ডস টেস্ট

স্পোর্টস ডেস্ক : নানা নাটকীয়তার পর ড্রতেই শেষ হল অ্যাশেজের লর্ডস টেস্ট। প্রায় দু’টি দিন বৃষ্টিতে ভেসে গেছে লর্ডস টেস্টের। তারপরেও ড্র হওয়া এই টেস্টে উল্লেখ করার মতো ঘটনা অনেক। বেন স্টোকসের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে ইংল্যান্ড পেল ইনিংস ঘোষণার সুযোগ। প্রথম ইনিংসে জোফরা আর্চারের বাউন্সারে মাথায় আঘাত পেয়েও স্টিভেন স্মিথের ৯২ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলা। ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম ‘কনকাশন’ বদলি হিসাবে খেলতে নামার ইতিহাস গড়া মার্নাস লাবুশেনের ব্যাট হাতে লড়াই। ম্যাচ বাঁচাতে না পারলেও প্রথম টেস্টে জিতে সিরিজে এগিয়ে আছে অস্ট্রেলিয়া। চতুর্থ দিন দলের বিপর্যয়ে ব্যাট হাতে ১১৫ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন বেন স্টোকস। ছিলেন অপরাজিত। রোববার ম্যাচের শেষ দিনে ৫ উইকেটে ২৫৮ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে ইংল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের লিড ছিলো ৮ রান। সব মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৬৭। ম্যাচের তখন বাকি সম্ভাব্য ৪৮ ওভার। তাই উইকেটে টিকে থাকাই মূলত অস্ট্রেলিয়ার সামনে মূল লক্ষ্য হয়ে দাঁড়ায়। জোফরা আর্চারের প্রথম স্পেলে আগুনে বোলিংয়ে সে লক্ষ্যটাও যেন কঠিন হয়ে ওঠে অজিদের সামনে। তবে ট্রাভিস হেড ও লাবুশেন গড়ে তোলেন প্রতিরোধ। ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম ক্রিকেটার হিসাবে ‘কনকাশন সাব’ হিসাবে মাঠে নামেন লাবুশেন। মাত্রই কিছুদিন আগে আইসিসি তাদের নিয়মে এই সাব-এর অন্তর্ভুক্তি এনেছে। যেখানে কোনো ক্রিকেটার মাথায় আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়লে তার বদলি হিসাবে অন্য ক্রিকেটার খেলতে পারবেন। মাথায় আঘাত পেয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে স্মিথ খেলতে না পারার সুযোগ পান লাবুশেন। নিজের পাওয়া সুযোগ বেশ ভালোই কাজে লাগিয়েছেন লেগস্পিনার ও ব্যাটসম্যান লাবুশেন। দলের খারাপ সময়ে তার ব্যাট থেকে আসে ১০০ বলে ৫৯ রান। ট্রাভিস হেড ৪২ রানে অপরাজিত থেকে দলকে শেষ পর্যন্ত টেনে নেন ড্রয়ের দিকে। ম্যাচ সেরার পুরস্কার ওঠে বেন স্টোকসের হাতে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ