সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

খুলনায় গৃহবধূ অপহরণের দায়ে পুলিশ সদস্যের কারাদণ্ড

খুলনা অফিস : খুলনায় গৃহবধূ অপহরণের দায়ে মিরাজ উদ্দিন নামের এক পুলিশ সদস্যকে (কনস্টেবল) ১৪ বছর কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩’র বিচারক মোহা. মহিদউজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্ত অপরাধী পুলিশ সদস্য খুলনা জেলা কারাগারে রয়েছে।
আদালতের সূত্র জানান, ২০১৭ সালের ২৬ ডিসেম্বর পলি বিশ্বাস নামের এক গৃহবধূ ৫ বছরের শিশুকে নিয়ে স্বামীর বন্ধু সেলিম হোসেনের সঙ্গে খালিশপুর মুজগুন্নি পার্কে বেড়াতে আসেন। এ সময় পুলিশ কনস্টেবল পরিচয়দানকারী মো. মিরাজ উদ্দিন মটরসাইকেল যোগে এসে সেলিম হোসেনের সাথে গৃহবধূ পলি বিশ্বাসের ছবি তোলে। তাকে ব্লাকমেল করে ২২শ’ টাকা ছিনিয়ে নেয়। ভয় দেখিয়ে সেলিম হোসেনকে ঘটনাস্থল থেকে তাড়িয়ে দেয়। পুলিশ পরিচয়দানকারী এই ব্যক্তি গৃহবধূ পলি বিশ্বাসকে নিয়ে গল্লামারি চৌধূরী আবাসিক হোটেলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। স্বামীর বন্ধু সেলিম হোসেন তাদের গতিবিধি অনুসরণ করে বিষয়টি খালিশপুর থানা পুলিশকে জানায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গৃহবধূকে উদ্ধার ও মিরাজ উদ্দিনকে গ্রেফতার করে। ওই ঘটনায় পলি বিশ্বাস বাদি হয়ে খালিশপুর থানায় মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-৪০-২৬-১২-১৭। মামলায় পলি বিশ্বাস তাকে ধর্ষণ ও অপহরণের কথা উল্লেখ করেন। ১২জন স্বাক্ষী সাক্ষ্যপ্রদান করে। ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি। সন্দেহাতীতভাবে অপহরণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত উল্লিখিত মেয়াদে সাজা প্রদান করেন। সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন স্পেশাল পিপি ফরিদ আহমেদ।
শিশুর বিকাশে প্রারম্ভিক শিক্ষা বিষয়ক এডভোকেসি সভা
শিশুর বিকাশে প্রারম্ভিক শিক্ষা প্রকল্প (তয় পর্যায়) এর আওতায় চলমান খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ১০টি শিশু বিকাশ কেন্দ্র সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কমিশনারসহ অন্যান্যদের সাথে এডভোকেসি সভা সোমবার সকালে খুলনা সিএসএস আভা সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ শিশু একাডেমি খুলনা জেলা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
এডভোকেসি সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. ইউসুপ আলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপ-প্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল, খুলনা ইউনিসেফের বিভাগীয় প্রধান মো. কফিল উদ্দিন, সহাকারী কমিশনার মো. আরাফাতুল আলম, ২৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলী আকবার টিপু, ৩১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আরিফ হোসেন মিঠু এবং শিশু একাডেমির ইসিডি স্পেশালিষ্ট মো. তারিকুল ইসলাম চৌধুরী। স্বাগত জানান জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মো. আবুল আলম।
বক্তারা বলেন, একটি শিশুর বিকাশ শুরু হয় নারীর গর্ভধারণের পূর্ব থেকেই। একটি শিশু ভবিষ্যত কি হবে তা নির্ধারিত হয় শিশুটির মায়ের যতœ, পরিবার, সমাজ তথ্য রাষ্ট্রের কর্মকান্ডের ওপর। শিশুরাই ভবিষ্যতে দেশকে নেতৃত্ব দিবে। তাই শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশে সকলকে আন্তরিক হতে হবে।
এডভোকেসি সভায় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ১০টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও সচিব, সরকারি কর্মকর্তা ও শিশু বিকাশ কেন্দ্রের শিক্ষকবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ