শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ইসলামের সর্বজনীন কল্যাণ ও সৌন্দর্য পুনরুদ্ধারে গবেষণা করতে হবে -প্রফেসর ড. মীজানুর রহমান

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ ও বাংলাদেশ ইসলামিক ল’ রিসার্চ এন্ড লিগ্যাল এইড সেন্টার-এর যৌথ উদ্যোগে গতকাল সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে “গবেষণার রীতি ও কৌশল” শীর্ষক দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মীজানুর রহমান। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ নুরুল আমিনের সভাপতিত্বে ও ড. মোহাম্মদ রেজাউল হোসাইন-এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠনে বিশেষ অতিথি ছিলেন কলা অনুষদের ডিন, অধ্যাপক ড. মোঃ আতিয়ার রহমান, অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি.-এর ডিএমডি আবুরেজা মোঃ ইয়াহিয়া, ইসলামিক ল’ রিসার্চ সেন্টার-এর নির্বাহী পরিচালক মোঃ শহীদুল ইসলাম এবং কর্মশালা বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ মোস্তফা কামাল। আরো উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ তারেক, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ নজরুল ইসলাম, সহকারী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ তাজাম্মুল হক, সহকারী অধ্যাপক তারেক বিন আতিক, সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ ছালেহ উদ্দিন, সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ কামরুল ইসলাম, সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ আহসান উল্লাহ, সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ খাইরুল ইসলাম, সহকারী অধ্যাপক মোবারক হোসেন, সহকারী অধ্যাপক আতিয়ার রহমানসহ অন্যান্য বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ।
কর্মশালায় প্রথম সেশন পরিচালনা করেন বিশিষ্ট গবেষক ও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এইচ এম জেহাদুল করিম এবং দ্বিতীয় সেশন পরিচালনা করেন ইসলামিক ল’ রিসার্চ সেন্টার-এর সহকারী পরিচালক ড. মুহাম্মদ রুহুল আমিন রব্বানী। সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ গ্রহনকারীদের হাতে সনদ তুলে দেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক মোঃ সেলিম ভূঁইয়া। এই কর্মশালায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়সহ সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের এমফিল ও পিএইচডিতে গবেষণারত তিনশতাধিক গবেষক অংশগ্রহণ করেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিসি প্রফেসর ড. মীজানুর রহমান বলেন, একসময় মুসলমানরাই ছিল জ্ঞান-গবেষণায় অগ্রগামী। নতুন নতুন উদ্ভাবন ও গবেষণার মাধ্যমে মুসলিম মনীষীগণই বিশ্বকে আলোর পথ দেখিয়েছেন কিন্তু এক্ষেত্রে এখন শুন্যতা তৈরী হয়েছে। মুসলমানরা এখন জ্ঞান-গবেষণা ত্যাগ করে নানা কুসংস্কার ও গোড়ামিতে নিমজ্জিত। গবেষণার মাধ্যমে যাবতীয় অন্ধকার দূর করে ইসলামের সার্বজনীন কল্যাণ ও সৌন্দর্য তোলে ধরা ইসলামিক স্কলার ও গবেষকদের কাজ। তিনি বলেন, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষক ও গবেষকগণ ইসলামী গবেষণার শুন্যতা পূরণে সক্ষম হবেন বলে আমি আশা করি। বর্তমান সময়ের চাহিদা পূরণে “গবেষণার রীতি ও কৌশল” শীর্ষক কর্মশালা আয়োজনের জন্য বাংলাদেশ ইসলামিক ল’ রিসার্চ সেন্টার ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, এই কর্মশালায় বিপুল সংখ্যক গবেষকের অংশগ্রহণ খুবই আশাব্যাঞ্চক, এই উদ্যোগ গবেষণার ক্ষেত্রে মাইল ফলক হয়ে থাকবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ