সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বন্যা দুর্গত বনী আদমের পাশে দাঁড়ানো আমাদের ঈমানী ও নৈতিক দায়িত্ব -বাংলাদেশ মসজিদ মিশন

গতকাল সোমবার বাংলাদেশ মসজিদ মিশনের উদ্যোগে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিযা উপজেলার বরাইত ও চিল্লি এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করেন মিশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা যাইনুল আবেদীনসহ নেতৃবৃন্দ -সংগ্রাম

বাংলাদেশ মসজিদ মিশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা যাইনুল আবেদীন বলেছেন, দেশের উত্তরাঞ্চল, পূর্বাঞ্চলসহ বিভিন্ন জেলায় ভয়াবহ বন্যায় লাখ লাখ বনী আদম খোলা আকাশের নীচে সহায়-সম্বলহীন অবস্থায় মানবেতর জীবন-যাপন করছে। এ সমস্ত অসহায়, সর্বস্বান্ত, দুর্গত, বানভাসীদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের সকলেরই ঈমানী ও নৈতিক দায়িত্ব।
গতকাল সোমবার মসজিদ মিশনের উদ্যোগে বরাইত ও তিললী এলাকার ধলেশ্বরী ও যমুনা নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত ও বানভাসী দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে তিনি একথা বলেন। গতকাল সকাল ৭টায় মসজিদ মিশনের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন মসজিদ মিশনের সেক্রেটারি জেনারেল ড. মাওলানা খলিলুর রহমান মাদানী, মসজিদ মিশনের মানিকগঞ্জ জেলা উপদেষ্টা মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন, হাফেজ কামরুল ইসলাম, মানিকগঞ্জ জেলা সভাপতি হাফেজ মাওলানা জাকিরুল ইসলাম, আবু সাঈদ, শামীম আল মাসুম, হারুনুর রশীদ, আবদুস সাত্তারসহ মসজিদ মিশন জেলা, থানা নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
শায়খ যাইনুল আবেদীন বলেন, যেনা, ব্যাভিচার, ইভটিজিং প্রকারে সামাজিক মরণব্যাধি ব্যাপক আকারে প্রসার ঘটায় আমারা আল্লাহর রহমত থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। এবং দিন দিন গজব নাযিল হচ্ছে। গজব থেকে রক্ষা পেতে পাপ কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে।
 সেক্রেটারি জেনারেল ড. মাওলানা খলিলুর রহমান মাদানী বলেন, মানব কল্যাণে কাজ করা, আর্ত্মমানবতার সেবায় সর্বোচ্চ নিয়োজিত থাকা ইসলামেরই মৌলিক শিক্ষা। সরকারের পাশাপাশি ব্যক্তি, সংগঠন, সংস্থা, সকলকেই সমাজ সংস্কার, সমাজ উন্নয়ন ও সামাজিক খেদমতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা একান্ত জরুরি। তিনি আরো বলেন, বিভিন্ন রকমের সামাজিক ব্যাধি আজ মহামারী আকার ধারণ করেছে। তা থেকে নিবৃত না হলে এসকল গযব বাড়তেই থাকবে।
মসজিদ মিশনের উদ্যোগে বানভাসী দুর্গত মানুষের মাঝে চাউল, ডাউল, চিড়া, গুড়, মুড়ি, লবন, তেল, আটা, ম্যাচ, মোমবাতি, বিস্কুট ইত্যাদি বিভিন্ন খাদ্য দ্রব্যের প্যাকেট বিতরণ করা হচ্ছে।
মসজিদ মিশনের সভাপতি ও সেক্রেটারি জেনারেলের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় ত্রাণ টিমসমূহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বানভাসী মানুষের মাঝে ত্রাণ কার্য পরিচালনা করছেন। বিভিন্ন জেলায় ও মসজিদ মিশনের জেলা দায়িত্বশীলগণ ও স্থানীয় ইমামগণ ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন জেলার দুর্গত বানভাসী মানুষের পাশে সাহায্য করার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।  নেতৃবৃন্দ মসজিদ মিশনের সকল শাখা দায়িত্বশীলদের সামর্থবানদের থেকে ত্রাণ সংগ্রহ করে স্থানীয়ভাবে দুর্গতদের মাঝে তা বিতরণের ব্যবস্থা করতে অনুরোধ জানান।
আগামী জুমু’আয় দেশের বিভিন্ন মসজিদের জুম’আর বয়ানে সর্বস্বান্ত বানভাসী দুর্গত মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসার জন্য সামর্থবানদের প্রতি আহ্বান জানানোর জন্য ইমাম-খতীবদের প্রতি নেতৃবৃন্দ অনুরোধ জানান।
কেন্দ্রীয় সমাজ কল্যাণ তহবিলেও আপনার অনুদান পাঠাতে পারেন। হিসাব নম্বর-৮৫  (এম.এস.এ) ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এলিফ্যান্ট রোড শাখা, ঢাকা। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ