শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

ধর্ষণ হত্যা॥ শিশু ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

* মামলা না তোলায় হুমকি
* সাবেক ইউপি সদস্যের লাশ উদ্ধার
* পিতৃত্বের দাবিতে ছাত্রীর বিষপান
ঝিনাইদহ সংবাদদাতা : ঝিনাইদহের শৈলকুপায় তানিয়া ধর্ষণ মামলার সাক্ষী ও বাদীর বিরুদ্ধে পাল্টা অপহরণ ও ধর্ষণ চেষ্টা মামলা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ধর্ষণ মামলার বাদী ইনছান আলী ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবে লিখিত ভাবে এই অভিযোগ করেন। লিখিত অভিযোগে উল্লখ করা হয় তানিয়া ধর্ষণ মামলার আসামী কলেজ ছাত্র রাব্বুল মোল্লার মা টিউলি খাতুন বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি করেন। আদালতের বিজ্ঞ বিরাচক সিএমএ আলিম আল রাজি মামলাটি এজাহার হিসেবে গ্রহণ করে শৈলকুপা থানার ওসিকে আগামী ২২ জুলাই তারিখের মধ্যে প্রকৃত ঘটনা তদন্ত পুর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছেন। ইনছান আলী লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, গত ৩১ মে শৈলকুপা যাদবপুর গ্রামের মোঃ ছাব্দুল মোল্যার ছেলে মোঃ রাব্বুল মোল্যা তার প্রতিবন্ধি বোনকে ধর্ষন করে। এ নিয়ে মামলা করার পর ধর্ষক রাব্বুলের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা তুলে নিতে চাপ সৃষ্টি, হুমকী ও আর্থিক সুবিধা দেওয়ার প্রলোভন দেখানো হয়। প্রভাবশালী ধর্ষক পরিবারের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেওয়ায় তারা বাদী ও সাক্ষিদের ঘরবাড়ি ছাড়া করে। মাঝেমধ্যে এলাকায় গেলে ধর্ষক রাব্বুলের পিতা ছাব্দুল মোল্লা, চাচা আজিজুর মোল্লা, বিল্লাল মোল্লা, আফাজ মোল্লা ও প্রতিবেশি সদর উদ্দীনসহ সামাজিক দলের লোকজন খুন জখমের হুমকি দেয়। গত ১৪ জুন মধ্যরাতে তারা নিজেরাই নিজেদের পরিবারের এক সদস্যের শরীর কেটে ও স্বর্ণলঙ্কার, নগদ টাকা ডাকাতি এবং ধর্ষণের চেষ্টা চালানোর অভিযোগ দেখিয়ে শৈলকুপা থানায় মিথ্যা অভিযোগ দেয়। শৈলকুপা থানা তদন্ত করে ঘটনাটি কাউন্টার মামলা ও মিথ্যা হওয়ায় মামলা রেকর্ড করেনি। পরবর্তীতে তারা ঝিনাইদহ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ করেন। ইনছান আলী অভিযোগ করেন, প্রতিবন্ধী ধর্ষিতা বোনের বিচার চাইতে গিয়ে আজ আমরা মিথ্যা মামলার জালে জড়িয়ে পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছি।
চৌগাছা (যশোর) : শিশু নির্যাতন হত্যা, ধর্ষণ বন্ধে চৌগাছায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার শহরের মুক্তিযুদ্ধ ভাস্কর্য মোড়ে উপজেলা ছাত্রলীগের ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফুলসারা ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ চৌধুরী, ছাত্রলীগ নেতা এইচ এম ফিরোজ হোসেন, আব্দুল কাদের ও লিখন হোসেন। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নারী ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবমহিলালীগের যুগ্ম সম্পাদক নাজনীন নাহার পপি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শাহাজান কবীর, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও পাতিবিলা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সহিদুল ইসলাম মিয়া, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য আসাদুল ইসলাম আসাদ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জাকির জাহান মোল্লা, ছাত্রলীগ নেতা রুবেল হোসেন, হযরত আলী, ইকবাল হোসেন, শোভন দেওয়ান, শোভন হোসেন, সোহেল দেওয়ান, সাকিব হোসেন, ইব্রাহিম হোসেনসহ ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ। মানববন্ধন শেষে একই স্থানে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়। পরে সেখান থেকে একটি মিছিল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের চৌগাছা বাসস্টান্ডের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ ও মিছিলে ধর্ষক ও নারী শিশু নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের শ্লোগান দেয়া হয়।
রাজাপুর (ঝালকাঠি) : ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাংগর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেনির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ মামলার আসামী আলম ওরফে খাট আলম (৪৮) কে গ্রেফতার করেছে রাজাপুর থানা পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় ঝালকাঠি সদর উপজেলার চর বাটারাকান্দা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। আলম উপজেলার সাংগর গ্রামের মৃত মোখছেদ আলী হাওলাদার এর ছেলে ও ৩ সন্তানের জনক। পুলিশ জানায়, আলম এর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে রাজাপুর থানার ৫ জুন ধর্ষনের অভিযোগে মামলা হয়েছে। উক্ত মামলায় এক মাত্র আসামী আলম।
ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা : চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে নিঁখোজের দুই দিন পর লাশ পাওয়া গেল সাবেকে ইউ.পি সদস্য সামশুল আলম (৭০) মেম্বারের। ১৪ জুলাই সকালে তার উদ্ধার করে পুলিশ। জানা যায়,উপজেলার লেলাং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক ইউ.পি সদস্য সামশুল আলম (৭০) মেম্বারর লেলাং মাহালিয়া টিলা সংলগ্ন ইছাপুইজ্জের বাড়িতে নিজ বসত ঘর থেকে শুক্রবার নিখোঁজ হয়। প্রতিদিনকার ন্যায় রাত নয়টায় তিনি ঘুমাতে গেলেও তার এক ঘন্টা পর থেকে সামশুল আলমকে আর ঘরে দেখতে পায় নি বলে জানিয়েছেন তার দৌহিত্র সাগর হোসেন। সাগর আরো জানান, তার চলাফেরায় নিয়মিত লাঠি ব্যবহার করলেও সেটিও নিয়ে যান নি। আত্মীয় স্বজনের বাড়িসহ সম্ভাব্য সব স্থানে খোঁজেও তার কোন হদিস মেলেনি। সকালে তাদের উঠানে তার দাদার পরনের কাপড়গুলো কে বা কারা রেখে চলে যায়, তা দেখে তারা বিস্মিত হয়েছেন। নিঁখোজের দুইদিন পর আজ ১৪ জুলাই পার্শবর্তী শেয়ার বিলে তার লাশ পাওয়া যায়।
স্থানীয় লেলাং ইউপি সদস্য মোহাম্মদ রফিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলায় কলেজ পড়ুয়া এক ছাত্রী অন্তঃসত্বা হওয়ার পর সন্তানের পিতৃত্বের দাবী ছেলের পরিবার প্রত্যাখ্যান করায় ওই ছাত্রী বিষপান করে হাসপাতালে চিকিৎসাও নিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে হরিণাকুন্ডু উপজেলার জোড়াদহ গ্রামে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ