শুক্রবার ২৭ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

এইভাবে কেউ যেন আর না হারে : উইলিয়ামসন

তীরে এসে তরী ডুবল নিউজিল্যান্ডের। বিশ্বকাপ ট্রফির কাছে গিয়েও তা ছুঁতে না পারার আক্ষেপ নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের।ম্যাচ শেষে তিনি বলে গেলেন, ‘টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। কারণ, পিচ শুকনো। তাই ভেবেছিলাম, স্কোরবোর্ডে বড রান তুলতে পারলে বিপক্ষ চাপে থাকবে। তবে আমাদের আরও ১০-২০ রান বেশি করতে হত। তা এখন বুঝতে পারছি’।নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক সঙ্গে যোগ করেন, ‘আমাদের বোলাররা ওদের পাল্টা চাপে ফেলে দিয়েছিল। শেষ বল পর্যন্ত লড়েছি আমরা। দুর্দান্ত লডাইয়ের পরে শেষ পর্যন্ত আমাদের থেকে যেতে হল পরাজিতদের দলেই। তবে এই ম্যাচ থেকেও অনেক ইতিবাচক শিক্ষা নিয়ে বাড়ি ফিরছি।’তিনি আরও বলেন, ‘এটা খুবই লজ্জার যে, বল স্টোকসের ব্যাটে লেগে চার হয়ে গেল। খেলার গতিতেই এটা হয়ে গিয়েছে। কী আর করা যাবে। তবে আশা করব, এই ঘটনা আর কোনও কোনও ম্যাচে হবে না। এইভাবে কেউ যেন আর না হারে।’ তবে ম্যাচ হারলেও গোটা বিশ্বকাপে ৫৭৮ রান করে প্রতিযোগিতার সেরা ক্রিকেটার হয়েছেন উইলিয়ামসনই। এদিন শচীন টেন্ডুলকারের হাত থেকে সেই পুরস্কার নিয়ে তিনি বলছেন, ‘বিশ্বকাপ জেতার জন্য ইংল্যান্ডকে ধন্যবাদ। ছেলেরা বিশ্বকাপটা হাত থেকে ছিটকে যাওয়ায় মুষড়ে পড়েছে। বিশ্বকাপ জিতে ফিরতে পারলে এই পুরস্কার আরও মধুর হত।’ লিগের ম্যাচে শেষ তিন খেলায় হেরে সেমিফাইনালে গিয়েছিল তাঁর দল। তাই চার দলের মধ্যে সেই কেন উইলিয়ামসনের নিউজিল্যান্ডকেই অপেক্ষাকৃত দুর্বল ভেবেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু সেমিফাইনাল ও ফাইনালে দুর্দান্ত ক্রিকেট উপহার দিল নিউজিল্যান্ড।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ