রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০
Online Edition

নাজিরপুরে ঝুঁকিপূর্ণ স্কুল ভবনের বারান্দায় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া

নাজিরপুর (পিরোজপুর) সংবাদদাতা : পিরোজপুর জেলার নাজিরপুরে একটি ঝুঁকিপূর্ণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবনের বারান্দায় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া চলছে। ওয়াল, ভিম ফাটল দেখা দেয়া এ স্কুল ভবনের প্লাস্টার খসে সময়-অসময় চলটা (ইটের খোয়া, বালু, সিমেন্ট ঢালাইয়ের অংশ বিশেষ) শ্রেণী কক্ষে আচড়ে পড়ছে। ফলে শিক্ষার্থীরা বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকার মধ্যে রয়েছে। 

সরজমিনে গিয়ে দেখাযায়, উপজেলার ৫৬ বুইচাকাঠী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তিনটি শ্রেণী কক্ষের দরজা, জানালা খুলে পড়ে যাওয়ার মত অবস্থায় রয়েছে। ক্লাশ চলাকালিন সময় প্রায়ই ভবনের ভিতরের প্লাস্টারের সাথে ঢালাইয়ের অংশ খসে পড়ার ফলে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ছোট-খাট দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মোস্মা হাসিনা খানম জানান, ২০১৭ সালে, ৫৬নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আমি জয়েন্ট করেছি। বিদ্যালয় ১৯৪২ সালে  স্থাপিত হয়, ৯৫-৯৬ সালে পুনঃনির্মাণ হয়। ভবনে ফাটল, ভিম ফাটল  দেখা যায় এবং প্লাস্টার ঢালাই’র ছোট বড়  অংশ ক্লাশ কক্ষে খসে পড়ে শিক্ষার্থীদের টেবিলে মাথায় পড়ে আহত হওয়ার ঘটনা ঘটছে। অদিতি বিশ^াস স্কুল পরির্দশনে এসে সরোজমিনে ঝুঁকিপূর্ণ ভবন দেখতে পেয়েছেন বলে জানাগেছে। তিনি শিক্ষার্থীদের স্কুলের ভবনের বাহিরে ক্লাশ নিতে বলেছেন বলে প্রধান শিক্ষক জানান।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শিকদার মোঃ আতিকুর রহমাণ জুয়েল এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ৫৬নং প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়েছে তাই উপজেলা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে, এলজিডি থেকে একলক্ষ পঞ্চশ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, যার দারা ৩টি কক্ষ বিশিষ্ট একটি টিনের ঘর করার জন্য, ঘরের কাজ চলমান রয়েছে, টিনের ঘরটি সম্পন্ন হলে ১০৯ জন শিক্ষার্থী নিয়মিত ক্লাশ করতে পারবে। জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের রিপোর্ট জেলা শিক্ষা অফিসে দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে স্কুল কমিটির সভাপতি মনিরুজ্জামান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সোয়াইল টেষ্ট হয়েছে টেন্ডার হলে নতুন ভবনের কাজ শুরু হবে আশা করি। অভিভাবক ও এলাকাবাসী এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ