শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

আমতলীতে ব্যাংক কর্মকর্তার দখলে সরকারি জমি

আমতলী (বরগুনা) সংবাদদাতা : বরগুনার আমতলী পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের বাইতুল আমান জামে মসজিদ সলগ্ন সরকারি ১ নং খাস খতিয়ানের একটি সরকারি পুকুর ভরাট করে বাড়ি নির্মাণ করছেন মো. মজিবুর রহমান নামে কৃষি ব্যাংকের এক মাঠ পরিদর্শক। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক আমতলী শাখায় কর্মরত আছেন। তার দাবি, ওই এলাকায় অনেকেই এভাবে দখল করে বাড়িঘর নির্মাণ করে আসছেন; তাই তিনিও সেভাবেই বাড়িঘর নির্মাণ করছেন। তবে আমতলী ভূীম অফিসের সার্ভেয়ার মো. ইকবাল হোসেন  বলেছেন, মজিবুর রহমানকে  নিষেধ করা সত্ত্বেও  অবৈধভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। শুক্রবার সকালে  ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, আমতলী পৌরসভাধীন ৩ নং ওর্য়াডের  চাওড়া মৌজার দাগ নং ৯১৭ এর  ১৫ শতাংশ জমি জুড়ে একটি পুরনো পুকুর বালু দিয়ে ভরাট করে ফেলে মো. মজিবুর রহমান। পুকুরটি তড়িঘড়ি করে ভরাট করার পরই চার পাশে টিন দিয়ে উঁচু দেয়ালের মত নির্মাণ করে ভিতরে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন।  স্থানীয়দের দাবি, ওই এলাকায় বসবাসরতদের পানি নিষ্কাশনের একমাত্র পথ ছিল এ পুকুরটি মজিবুর রহমান জমিটির দখল করে চারপাশ দিয়ে নিচে পাকা বাউন্ডারী করে উপরে উচু করে টিনদিয়ে বেড়া দিয়ে চারপাশ আটকিয়ে দেওয়ায়  সামান্য বৃষ্টিতে এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। অথচ মজিবুর রহমান ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে অবৈধভাবে সরকারি পুকুরটি বালু দিয়ে ভরাট এবং সেখানে পাকা বাড়িঘর নির্মাণ করেছেন।  আমতলী ভূমি অফিস বিষয়টি জানলেও কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। একটি সরকারি পুকুর এভাবে ভরাট করা ঠিক হয়েছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে মজিবুর রহমান বলেন, এ এলাকায় এভাবে অনেকেই বাড়িঘর করে দীর্ঘদিন বসবাস করে আসছে। তাই আমিও সেভাবেই করছি। আমতলী উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি কমলেশ মজুমদার বলেন, বিষয়টি জেনে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন তহলিদারকে পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলাম, তারপর ও যদি সে কাজ করে তার অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলা হবে। বরগুনা জেলা প্রশাসক মো. মোস্তাইন বিল্লাহ মুঠোফোনে জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে তদন্ত সাপেক্ষ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ