শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

সুন্দরবনে মাছ ধরা বন্ধ জেলেদের আহাজারি

খুলনা অফিস : পয়লা জুলাই থেকে আগামী দুই মাস সুন্দরবনে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করা হয়েছে। বলা হয়েছে, সুন্দরবনের বিভিন্ন খালে বিষ দিয়ে মাছ শিকার রোধ এবং মাছের নিরাপদ প্রজনন ও সংরক্ষণ করতেই এই নিষেধাজ্ঞা। পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. শাহিন কবির এই তথ্য জানিয়েছেন।
তবে নিষেধাজ্ঞার খবর জানার পর জেলেদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। সুন্দরবনের খুব কাছের জনপদ মোংলা উপজেলার চিলা ইউনিয়নের জয়মনি গ্রামের মো. শামসুদ্দিন হাওলাদার (৬০)বলেন, ‘সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ ধরে খারাপ লোকেরা, আমরা ফরেস্ট (বনবিভাগ) থেকে অনুমতি নিয়ে মাছ ধরি পেটের দায়ে। এটা করেই আমাদের সংসার চলে, এটাই আমাদের পেট মজুরি। শুনছি আর মাছ ধরতে পারব না, এখন তো জীবনে মারা যাবো।’
সুন্দরবনের বিভিন্ন খালে মাছ ধরে পরিবারের জীবিকা চালান এমন আরও অনেকেরে সঙ্গে কথা হলো। তারা বললেন, ‘ফরেস্টের (বনবিভাগ) পাশ পারমিট নিয়ে ১২ মাসই নদীতে মাছ ধরি। এখন টানা দুই মাস মাছ ধরা বন্ধ থাকলে কী করে খাবো, কীভাবে সংসার চলবে?’ এসময় তারা সরকারের কাছে বিকল্প কর্মসংস্থানের দাবি জানিয়েছেন। পূর্বসুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী রেঞ্জ কর্মকর্তা (এসিএফ) মো. শাহিন কবির বলেন, ‘জুলাই-আগস্ট এই দুই মাস পর আবার জেলেদের মাছ ধরার অনুমতি দেওয়া হবে।’ এসময়ে বন নির্ভরশীল পেশাজীবী জেলেরা কীভাবে তাদের জীবিকা চালাবে জানতে চাইলে এই বন কর্মকর্তা বলেন, ‘তাদের জন্য বিকল্প কর্মসংস্থানের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’
সুন্দরবন বিভাগের বন সংরক্ষক (সিএফ) আমির হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘সুন্দরবনের আয়তন প্রায় ৬ হাজার ১৭ বর্গ কিলোমিটার। যার মধ্যে জলভাগের পরিমাণ প্রায় ১ হাজার ৮৭৪ দশমিক ১ বর্গ কিলোমিটার। যা সমগ্র সুন্দরবনের ৩১ দশমিক ১৫ শতাংশ। এই জলভাগের জালের মত ছড়িয়ে আছে ১৩টি নদ-নদীসহ ৪৫০টি খাল। জোয়ার আসলে এসব নদী ও খালে নানা জাতের মাছ আসে।
তিনি আরও জানান, সুন্দরবনের কাছ (জ্বালানি) সংগ্রহের জন্য বাওয়ালিরা নির্দিষ্ট পরিমাণ রাজস্ব দিয়ে পাস-পারমিট নেয়। তবে অনেকে অবৈধভাবে বনে প্রবেশ করে। এদের মধ্যে কেউ কেউ সুন্দরবনের মৎস্য ও মৎস্য প্রজাতির সম্পদ আহরণ করে। সাদা মাছের প্রজনন মওসুমে মাছের আধিক্য থাকায় এক শ্রেণির অসাধু জেলেরা অধিক লাভের জন্য সুন্দরবনের খালগুলোতে বিষ দিয়ে মাছ ধরেন। এজন্য তাদের ঠেকাতে এবং সুন্দরবনের খালে মাছের প্রজনন বাড়াতে দুই মাস নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ