সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

শাহজাদপুরের গালা গ্রামের রাস্তা না থাকায় ২০০ পরিবার অবরুদ্ধ

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের গালা গ্রামের অবরুদ্ধ পরিবারগুলো এভাবেই দেয়ালের নীচ দিয়ে চলাচল করছে

এম,এ, জাফর লিটন, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার গালা ইউনিয়নের গালা গ্রামে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে হাসপাতালের দেয়াল নির্মাণ এবং ব্যক্তি মালিকানাধীন ঘর উত্তোলন করায় প্রায় ২০০ পরিবারের কয়েক হাজার মানুষ অবরুদ্ধ হয়ে পরেছে। সরেজমিন ঘুরে, ভুক্তভোগী পরিবারগুলো সূত্রে জানা যায়, গালা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ  কেন্দ্রের পূর্ব পাশে গালা গ্রামের প্রায় ২০০টি পরিবার যুগ যুগ ধরে বসবাস করে আসছে। এবং স্বাস্থ্য কেন্দ্রের উত্তর পাশ দিয়ে ঐ পরিবারগুলোর চলাচলের একমাত্র রাস্তা ছিল। সম্প্রতি স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বাউন্ডারী ওয়াল তৈরী করে দিলে ঐ রাস্তাটি বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু তার উত্তর পাশ দিয়ে কয়েক হাত রাস্তা থাকলেও স্থানীয় আফছার আলী  নিজের জায়গা দাবী করে রাস্তা বরাবর একটি ঘর উত্তোলণ করে। এতে ২০০ পরিবারের কয়েক হাজার মানুষ অবরুদ্ধ হয়ে পরে। গালা গ্রামের শফিকুল ইসলাম জানান, জামিরতা- ভোড়াকোলা সড়ক থেকে গালা ওয়াপদা বাঁধ পর্যন্ত  রাস্তাটি যুগ যুগ ধরে জনগণ ব্যবহার করে আসলেও আফছার আলী ঘর তুলে তা বন্ধ করে দেয়। আব্দুল মান্নানেরর স্ত্রী বুলবুলি বেগম জানান, রাস্তা বন্ধ করে দেয়ায় আমরা হাসপাতালের দেয়ালের নীচ দিয়ে অতি কষ্টে বসে বসে চলাচল করছি। ৮০ বছরের বৃদ্ধা রিজিয়া বেওয়া জানান, আমাগো চলাচলের স্বাধীনতা নাইক্যা বাবা। হাট বাজার থাইক্যা মালামাল আনা নেওয়া করবার পারেনা। খুবই কষ্ট অয়। এ ব্যাপারে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, জনগনের চলাচলের জন্য আমরা  স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বাউন্ডারী ওয়াল করার সময় উত্তর পার্শ্বে ২ ফুট রেখে দিলেও  আফসার আলী  জোর করে দখল করে জনগনের চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে অভিযুক্ত আফসার আলী জানান, হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষ সবটুকুই দখল করে বাউন্ডারী দেয়াল দিয়েছে। এখন যা আছে আমার ব্যক্তিগত সম্পত্তি। তাই জনসাধারণকে রাস্তা দেওয়ার কোন প্রশ্নই আসেনা। স্থানীয় ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আবু সাঈদ জানান, আমরা বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার আলোচনা করেছি আফছার আলীর সাথে কোন সমাঝোতা সম্ভব হয়নি। তবে এলাকবাসী জানান,  দ্রুত তাদের চলাচলের পথ উন্মুক্ত করে দিলে হাজার হাজার মানুষ অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্তি পাবে। সেই সাথে জনসাধারণ চলাচলে স্বাধীনতা ভোগ করবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন তারা।
বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার 
শাহজাদপুর উপজেলার পোরজনা ইউনিয়নের হুরাসাগর নদীর জামিরতা জোত পাড়া পয়েন্ট থেকে সোমবার সকালে দবির মোল্লা (৬০) নামের এক বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করেছে শাহজাদপুর থানা পুলিশ। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, জামিরতা জোতপাড়া গ্রামের মৃত তফিজ মোল্লার পুত্র দবির মোল্লার লাশ নদীর তীরে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দিলে। পুলিশ লাশ উদ্ধার ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ মর্গে পাঠিয়েছে। শাহজাদপুর থানার ইন্সপেক্টর তদন্ত  রাকিবুল হুদা জানান, শাহজাদপুর সার্কেলের এসপি ফাহমিদা হক শেলী ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। কে বা কারা হত্যাকান্ডের জন্য জড়িত তা তদন্ত চলছে। তবে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কারো বিরুদ্ধে  অভিযোগ করা হয়নি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শাহজাদপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ