শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

কেরানীগঞ্জে বুড়িগঙ্গার তীরে ৮৮টি স্থাপনা উচ্ছেদ

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) সংবাদদাতা : বুড়িগঙ্গা নদীর দুই তীর দখলমুক্ত করতে চতুর্থ দফায় উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছে বিআইডব্লিউটিএ। চতুর্থ দফার তৃতীয় দিনে বৃহস্পতিবার ৪জুলাই সকাল ৯টায় বুড়িগঙ্গা নদীর উত্তর পাশ কামরাঙ্গীরচর হুজুরপারা হতে বাবুবাজার ব্রীজ পর্যন্ত এবং কেরানীগঞ্জ দক্ষিন পার্শে তেলঘাট পর্যন্ত গিয়ে শেষ হয়। এসময় ছোট বড় ৮৮টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও ১.৫ একর জায়গা দখলদারদের হাত থেকে অবমুক্ত করা হয়।এসময় উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান, ঢাকা নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিন , উপ-পরিচালক মিজানুর রহমান, সহকারি পরিচালক নূর হোসেন, সহকারি পরিচালক রেজাউল করিম।
অভিযান চলাকালিন সময় কামরাঙ্গীরচর হুজুরপাড়া এলাকার পাকাবিল্ডিং ভাঙ্গার সময় অভিযানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে চাইলে অবৈধ দখলকারী জামান হোসেন নামে একজনকে বিআইডব্লিউটিএ হাতে নাতে ধরে ফেলে আটক করে ও কামরাঙ্গীরচর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।একই অপরাধে আবুল হোসেন ও আব্দুর রহমান নামে আরো দু‘জনসহ মোট তিন জনের নামে বিআইডব্লিউটিএ উপ পরিচালক একেএম কায়সারুল ইসলাম বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন মামলা নং-১০ তারিখ ৪জুলাই ২০১৯। মামলার বিষয়ে কামরাঙ্গীরচর থানার ওসি শাহিন ফকির নিশ্চিত করেছেন।
বিআইডব্লিউটিএ এর যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিন জানান,দখলকারীরা যতই শক্তিশালী হোক আমরা নদীর দু‘পাশ উদ্ধার করবই।  আমরা ৫দিনের বিরতি দিয়ে আবার আগামী ০৯ জুলাই,২০১৯ তারিখ মঙ্গলবার সকাল ৯ টা হতে বাদামতলী থেকে শুরু হয়ে পর পর তিন দিন প্রতিদিন সকাল ৯ টায় থেকে ৫ টা পর্যন্ত ফতুল্লার অভিমুখে বুড়িগঙ্গা নদীর উভয় তীরে উচ্ছেদ অভিযান চলবে। তিনি আরো বলেন,চতুর্থ দফার উচ্ছেদ অভিযানের তৃতীয় দিনে ৮৮ টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ