মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২
Online Edition

শিশু সোহাগ আর কোনদিন খেলবে না

পাবনা ধেকে সংবাদদাতা : শিশু সোহাগ আর কোনদিন খেলবে না। আনন্দের সাথে খেলতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরতে হলো সোহাগকে। নিখোঁজের  ১৪ ঘন্টা পর গতকাল মঙ্গলবার পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার চরগড়গড়ির গুচ্ছগ্রাম একটি ফসলী মাঠ থেকে সজিব হোসেন সোহাগ (৬) নামে কোমলমতি শিশুটির লাশ উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। তার শরীর ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার বুকের ওপর একটি ফুটবল পাওয়া গেছে। সে চরগড়গড়ি বৌটুবানি পাঠশালার প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল। নিহত সোহাগ উপজেলার চরগড়গড়ি গ্রামের দিনমজুর কৃষক আকমল হোসেন খাঁর (২৮) একমাত্র সন্তান।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকেলে সহপাঠীদের সঙ্গে খেলার জন্য বাড়ি হতে বের হয় সজিব। বাড়ি হতে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে একটি ধান ক্ষেতের পাশে বিকেলে খেলাধূলা করে। খেলা শেষে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন তাকে খুঁজতে বের হয়। কিন্তু কোথাও তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। অবশেষে গত মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে ক্ষেতে করলা তুলতে গিয়ে স্থানীয় এক কৃষক সোহাগের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পরিবারের সদস্যদের খবর দেয়। পরে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার (ইউপি সদস্য) মারফত খবর পেয়ে ঈশ্বরদী থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শিশুটিকে হত্যা করা হতে পারে বলে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী জানান। এটা পরিকল্পিত হত্যা মনে হচ্ছে। ময়নাতদন্তের পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে বলেও ওসি বলেন। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ