মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২
Online Edition

কক্সবাজার ও রাঙ্গামাটিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ॥ লাখ লাখ টাকার ক্ষতি

কক্সবাজার দক্ষিণ সংবাদদাতা: কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা বাংলাবাজারের বাহার মেজর অটো রাইচ মিল নামে একটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে মিলের মূল্যবান সরঞ্জাম ও রক্ষিত ধান-চাল পুড়ে গেছে। বুধবার (৩ জুলাই) ভোররাতে আগুনের সূত্রপাত হয়। স্থানীয়দের প্রচেষ্টা ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের সহায়তায় প্রায় দেড়ঘণ্টা পর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে। বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পেয়েছে আশপাশের দোকানপাটগুলো। বৈদ্যুতিক শর্ট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এদিকে, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হতে পারে বলে ধারণা করছেন কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. শাফায়াত হোসেন।
রাঙ্গামাটি : ২ জুন মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাঙ্গামাটি জেলার লংগদু উপজেলাধীন মাইনীমুখ বাজারস্থ ঢাকাইয়া টিলা নামক জায়গায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। ইহাতে প্রায় শতাধিক ঘরবাড়ি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। মাইনীমুখ বাজারস্থ উক্ত ঢাকাইয়া টিলার স্থানীয় বাসিন্দা জেসমিন আক্তার,  সাজ্জাদ সহ অনেকেই বলেন একই পাড়ার শফিকের বাসা থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে।
কিন্তু কিভাবে আগুনের সূত্রপাত ঘটে তা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারেনি। স্থানীয় বাসিন্দা আবু হানিফ জানান রাত দুইটা/আড়াইটার দিকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। কেউ কিছু বুঝে উঠার আগেই আগুন খুব দ্রুতই পুরা এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। সকলেই পরনের কাপড় ছাড়া কেউ কিছু রক্ষা করতে না পারলেও কারো জানের ক্ষতি হয় নি। তিনি আরো বলেন স্থানীয় লোকজন শত চেষ্টা করেও আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে পারেনি। উপজেলাতে ফায়ার সার্ভিস না থাকায় এবং অগ্নি নির্বাপনের আধুনিক কোন প্রযুক্তি বাজারে না থাকায় আগুন কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হচ্ছিল না।  পরে খাগড়াছড়ি জেলা ও তার দিঘিনালা উপজেলার ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম এসে প্রায় দুই ঘন্টা কঠোর পরিশ্রমের ফলে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। রাঙ্গামাটি ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক গোলাম মোস্তফা বলেন খাগড়াছড়ি ও দিঘিনালার ফায়ার সার্ভিসের টিম কয়েক ঘন্টা পরিশ্রম করে আগুন সম্পুর্ণরূপে নিয়ন্ত্রণে আনে।  কিন্তু আগুনের সুত্রপাত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সম্পর্কে এখনো জানা যায়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ