সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সোনাহাট স্থলবন্দরে ইমিগ্রেশন চালুর সিদ্ধান্ত

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা : ভারতের আসামের ধুবড়ি জেলায় বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশের ডেপুটি কমিশনার (ডিসি) এবং ডিষ্ট্রিক ম্যাজিষ্ট্রেট (ডিএম) পর্যায়ের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে দুপুর দুইটা পর্যন্ত এই সম্মেলন চলে।
কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন। কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান, কুড়িগ্রাম বিজিবি পরিচালক লে: কর্নেল মোঃ জামাল হোসেন ভূরুঙ্গামারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাগফুরুল হাসান আব্বাসী, রাজিবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান, কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোডের্র নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মাসুদ হোসেন, বাংলাদেশ ল্যান্ড পোর্ট অথরিটির সহকারী পরিচালক মাহফুজুল ইসলাম ভূঁইয়া, সোনাহাট স্থল বন্দর সিএন্ডএফ এসোসিয়েশনের সভাপতি সরকার রকিব আহমেদ জুয়েল সম্মেলনে অংশ গ্রহণ করেন।
অপরদিকে ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ধুবড়ি জেলা প্রশাসক অনন্ত লাল জ্ঞানী। তার সাথে ছিলেন পানবাড়ি মানকার চর জেলা প্রশাসক আতিকা সুলতানা, বিএসএফ অধিনায়ক ললিত কুমার, ধুবড়ি পুলিশ সুপার ডিডি হাজারিকা, মানকার চরএএসপি কাঙ্কন জ্যোতি।
জানা গেছে, সীমান্ত অপরাধ রোধ, সীমান্ত পিলার নির্মাণ ও পুনঃনির্মাণ এবং সংস্কার, সীমান্ত হাট চালু ও বন্দী বিনিময় বিষয়ে আলোচনা হয়।
এছাড়া দুই দেশের পক্ষ থেকে সোনাহাট স্থল বন্দরে ইমিগ্রেশন চালুর বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল রোববার কুড়িগ্রাম থেকে ধুবড়ি  পৌঁছলে তাদেরকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানায় ধুরড়ি জেলা প্রশাসন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ