শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০
Online Edition

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে নৌযান চলাচল বন্ধ

কক্সবাজার দক্ষিণ সংবাদদাতা: বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের প্রভাবে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে দ্বীপের অর্ধশতাধিক মানুষ টেকনাফে আটকা রয়েছে দু’দিন ধরে। সোমবার সকালেও এই রুটে কোন নৌযান চলাচল করেনি।
এদিকে বঙ্গোপসাগর ও সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় অবস্থানরত লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হওয়ায় সেখানে তিন নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।
সামবার সকালে টেকনাফ পৌরসভার কায়ুকখালিয়ার নৌঘাটে অনেক লোককে ভিড় করতে দেখা যায়। তারা সেন্টমার্টিন যেতে না পেরে আত্মীয়-স্বজন ও টেকনাফের বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে অবস্থান করছেন।
এ প্রসঙ্গে সেন্টমার্টিন ইউপির চেয়ারম্যান নুর আহমদ বলেন, সাগর উত্তাল থাকায় শনিবার থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে দ্বীপে নিত্যপ্রয়োজনী জিনিসপত্রের সংকট দেখা দিয়েছে। এছাড়া দুইদিন আগে চিকিৎসাসহ বিভিন্ন কাজে আসা অর্ধশতাধিক মানুষ টেকনাফে আটকা পড়েছেন। তারা আত্মীস্বজনসহ কয়েকটি আবাসিক হোটেলে রয়েছেন।
 সেন্টমার্টিন- টেকনাফ রুটে নৌযান সমিতির সভাপতি রশিদ আহমদ বলেন, সাগর উত্তাল থাকায় গত দু’দিন ধরে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে যাত্রী ও মালামাল পারাপার, ইঞ্জিনচালিত নৌকাসহ সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন। ফলে এ রুটে রুটে কোনো নৌযান চলাচল করতে পারছে না।
জানতে চাইলে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রবিউল হাসান বলেন, সাগর উত্তাল থাকায় দুর্ঘটনা এড়াতে এ রুটে সকল ধরনের নৌযান চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। সাগর শান্ত হলে নৌযান চলাচলের অনুমতি দেওয়া হবে।
কক্সবাজারসহ ৪ সমুদ্রবন্দরে তিন নাম্বার সতর্ক সংকেত
উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালার সৃষ্টি হচ্ছে।
বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ কারণে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে তিন নাম্বার স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।
  সোমবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক সতর্কবার্তায় এ কথা জানানো হয়।
এতে বলা হয়, উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ