বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

সরকার লুটপাটের দায় জনগণের ওপর চাপাচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার : কোনো কারণ ছাড়াই আবারও বেড়েছে গ্যাসের দাম। গণবিরোধী এই দাম বৃদ্ধি কোনভাবেই মেনে নিবে না। সরকারের ভুলনীতি, দুর্নীত ও লুটপাটের দায় জনগণ নেবে না। সরকার যদি দাম বৃদ্ধির এই প্রস্তাব প্রত্যাহার না করে বড় ধরনের আন্দোলনে নামবে জনগণ। গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে গতকাল বিভিন্ন সংগঠন বিক্ষোভ মিছিল ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।
গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত ঘোষণার প্রতিবাদে বাসদ ঢাকা মহানগর শাখার উদ্যোগে গতকাল বিকেল সাড়ে ৫টায় তাৎক্ষণিকভাবে এক প্রতিবাদ বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিল শেষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাসদ ঢাকা মহানগর সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ। বক্তব্য রাখেন সদস্য সচিব জুলফিকার আলী ও খালেকুজ্জামান লিপন। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল তোপখানা রোড, পল্টন মোড়, বিজয় নগর, সেগুনবাহিচাসহ বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে তোপখানা রোডের দলীয় কার্যালয়ের সমানে এসে শেষ হয়।
সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের ভুলনীতি, দুর্নীত ও লুটপাটের দায় জনগণ নেবে না। বিইআরসি একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব হলো জ্বালানি বিষয়ে জনগণের উপর সরকার বা অন্য কেউ যাতে অযৌক্তিক, অন্যায় কোন কিছু চাপিয়ে দিতে না পারে, সে বিষয়ে জনগণের স্বার্থ দেখা। আইনে আছে গ্যাস ও বিদ্যুৎ কোম্পানিসমূহ লাভজনক অবস্থায় থাকলে কোন অবস্থায়ই দাম বাড়ানো যাবে না।
কিন্তু বিইআরসি তার আইনী অবস্থান পরিহার করে জনগণের স্বার্থ না দেখে সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট ও ভুলনীতির সমর্থনে কাজ করে চলেছে। ৬টি গ্যাস বিতরণী কোম্পানির মধ্যে ১টি বাদে সবকটি লাভজনক অবস্থায় রয়েছে এবং ১টি সঞ্চালন প্রতিষ্ঠান লাভজনক থাকার পরও নতুন করে সরকারি হুকুমে দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে যা জনগণের প্রতি বিইআরসির বিশ্বাসঘাতকতা। নেতৃবৃন্দ গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিলের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন। অন্যথায় হরতাল-অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচির মাধ্যমে মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল করতে বাধ্য করা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হয়।
একই সাথে গ্যাসের অযৌক্তিক ও অন্যায় মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণার প্রতিবাদে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ নগর শাখার উদ্যোগে আজকাল ১ জুলাই বিকেল ৩টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হবে। কর্মসূচি সফল করার জন্য দলের সকল নেতা-কর্মী ও জনগণকে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলে অংশগ্রহণ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।
এদিকে  বাম গণতান্ত্রিক জোট বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের দুর্নীতি ও লুটপাটের দায় জনগণের উপর চাপাতে বিইআরসি এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিলের জোর দাবি জানিয়েছেন। একই সাথে সকল বাম প্রগতিশীল দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক দল, জোট, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ব্যক্তি গোষ্ঠীকে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সরকারের এই অযৌক্তিক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।
 জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন বলেছেন, কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের কাজকে আন্দোলনের প্রস্তুতি হিসেবে সম্পন্ন করতে হবে। দেশে যে ধরনের স্বৈরশাসন চলছে এতে গতানুগতিক রাজনৈতিক দল করে কোনো লাভ নেই। এজন্যই দলকে আন্দোলনমুখী করতে হবে এবং সরকার বিরোধী গণতন্ত্রমনা ও প্রগতিশীল দল ও মহলকে নিয়ে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।
আব্দুল মালেক রতন বলেন, সরকার জনগণের মতের বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করেছে। জনগণ এই বর্ধিত গ্যাসের মূল্য মেনে নিবে না। সরকারকে এই মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব প্রত্যাহার করতে হবে। তা না হলে বড় ধরনের আন্দোলন গড়ে তোলবে সাধারণ জনগণ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ