সোমবার ২৫ মে ২০২০
Online Edition

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে ২ বছর লাগবে

গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে শহীদ জিয়া স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত নাগরিক সংলাপে বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: দেশকে অবরুদ্ধ উল্লেখ করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলন-সংগ্রামে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, যত তাড়াতাড়ি আন্দোলনে নামতে পারবো ততো তাড়াতাড়ি দেশ মুক্তি পাবে। আমি না পারলে আপনি করবেন। আপনি না পারলে তৃতীয় কোনও পক্ষ করবে। তবে আন্দোলন করতেই হবে। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় কোনও দেশে হয়তো ৩০ বছর লেগেছে, কোন দেশে ১০ বছর লেগেছে, তবে আমরা যত তাড়াতাড়ি আন্দোলনে নামতে পারবো তত তাড়াতাড়ি গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে। আন্দোলনে নামতে পারলে বড়জোর ২ বছর লাগবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে।
গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে শহীদ জিয়া স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত জাতীয় রাজনীতি: গণতন্ত্রের মুক্তি কোন পথে শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- শহীদ জিয়া স্মৃতি পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর চৌধুরী ও বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহম্মদ রহমাতুল্লাহ, এলডিপি নেতা ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, রমিজ উদ্দিন রুমি প্রমুখ।
নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, দেশ আজ অবরুদ্ধ। দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে রাজপথে আন্দোলন করতে হবে। গণঅভ্যুত্থান ছাড়া এ দেশের মুক্তি মিলবে না। রাজপথের লড়াই বাদ দিয়ে যারা সংসদের লড়াইয়ের কথা ভাবেন তারা আসলে কোনও লড়াই করতে পারবেন না মন্তব্য করে মান্না বলেন, যারা সংসদের লড়াইয়ের কথা ভাবেন তারা সংসদে ২ মিনিট সময় পান। তাদেরকে ২ মিনিট সময় দেয়া হয়। ১ মিনিট পার হলেই মাইক বন্ধ করে দেয়া হয়। আর বক্তব্য দেয়ার আগে স্পিকার বলে দেন- যেন কোনও অসঙ্গতিমূলক বক্তব্য দেয়া না হয়। এভাবে তো আন্দোলন হয় না। এভাবে তো গণতন্ত্রের মুক্তি আসবে না।
মান্না বলেন, দেশে ওই নেতৃত্ব চাই যে নেতৃত্বে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে। স্বৈরশাসক থেকে দেশ মুক্তি পাবে। মানুষের ভাগ্যের কোনও পরিবর্তন হচ্ছে না। ৩০ ডিসেম্বর যে রকম ছিল এই জুন-জুলাই মাসেও মানুষ একই রকম আছে। মানুষ এখনও সরকারের পক্ষে যায় নাই। ভোটাররা এখনও ভোট দিতে যায় না। কারণ তারা জানে ভোট দিয়ে কোনও লাভ নেই।
তিনি বলেন, এইসব মানুষদের ঐক্যবদ্ধ করে আন্দোলন করতে হবে। তাহলেই মুক্তি মিলবে। আর যদি মনে করা হয়- কোনও দৈব আওয়াজে বা পশ্চিমের বাতাস এসে বর্তমান ক্ষমতাসীন শক্তিকে পরাজিত করে দেবে তবে সেটি ভুল ধারণা হবে। এই শক্তিকে পরাজিত করতে হলে রাজপথে নামতেই হবে।
এসময় বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মান্না বলেন, আজ থেকে কতদিন পরে আপনারা রাস্তায় আন্দোলন করতে পারবেন ? রাজপথের লড়াইয়ে আসতে পারবেন ? আমি জানি, আমার এই প্রশ্নের উত্তর যারা বিএনপিকে নেতৃত্ব দেন তারা নিজেরাও জানেন না। বিরোধী সকল দলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আসুন যে যার দল গোছাই, তারপর আন্দোলনে নামি। দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করি।
গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে শুধু রাজনৈতিক দলের ওপর ভরসা করে থাকলে হবে না মন্তব্য করে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, দেশে অনেক প্রকার সংগঠন আছে। এই ধরেন কিছুদিন আগে নুসরাতকে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো। তখন দেশের সব নারীসমাজ রাস্তায় নামতে পারলেন না? সম্প্রতি বরগুনায় রিফাত নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করা হলো। দেশের যুবসমাজ এর প্রতিবাদে নামতে পারলেন না? শুধু রাজনৈতিক দলের উপর ভরসা করে থাকলেই দেশে বাকস্বাধীনতা গণতন্ত্রের মুক্তি আসবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ