বৃহস্পতিবার ১৬ জুলাই ২০২০
Online Edition

লবণ আমদানিতে অনিয়ম বন্ধে মন্ত্রিপরিষদে দুদকের ১০ দফা সুপারিশ

স্টাফ রিপোর্টার : লবণ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা যাচাই না করেই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে কাঁচা লবণ আমদানির অনুমোদন দেওয়ার ঘটনায় অনিয়ম হচ্ছে বলে দাবি করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অনিয়ম বন্ধে সংস্থাটির পক্ষ থেকে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে ১০ দফা সুপারিশ পাঠানো হয়েছে। আর এসব সুপারিশের অনুলিপি পাঠানো হয়েছে বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং বিসিক চেয়ারম্যানের কাছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সুপারিশগুলো মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে পাঠানো হয় বলে জানিয়েছেন দুদক উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য। লবণ আমদানির প্রক্রিয়া দুদকের কাছে যথাযথ মনে হয়নি দাবি করে সুপারিশে বলা হয়- লবণের মৌসুম শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিসিকের কাছ থেকে চাহিদা ও উৎপাদনের তথ্য সংগ্রহ করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ঘাটতি ও আমদানির বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষপে নিতে হবে। নিজস্ব লবণ শিল্পের সুরক্ষার জন্য ঘাটতি পূরণের নামে চাহিদার বেশি যেন কাঁচা লবণ আমদানি না হয়, সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। বিসিক সিআইডিডি প্রকল্পের আওতায় ভোজ্য ও শিল্প লবণ উৎপাদনকারী লবণ মিলগুলোর কার্যক্রম তদারকি করে লবণ উৎপাদন ও বিপণনের সঙ্গে জড়িত লবণ মিলের জন্য বিসিকের নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করতে হবে। যেসব লবণ মিল ভোজ্য লবণ বাজারজাত করে তাদরে নিজস্ব আইএসপি মেশিন থাকা বাধ্যতামূলক করতে হবে। ভোজ্য লবণ আমদানির ক্ষেত্রে যেসব লবণ মিল বিসিকের তালিকাভুক্ত সেসব মিলের বাইরে অন্য কোনও লবণ মিলকে লবণ আমদানির অনুমতি প্রদান করা যাবে না। লবণ আমদানির জন্য যোগ্য মিল নির্বাচনের জন্য বিসিক, প্রধান আমদানি ও রফতানি নিয়ন্ত্রকের দফতর, শিল্প মন্ত্রণালয় এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে গঠিত একটি কমিটির মাধ্যমে নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। ভোজ্য লবণ উৎপাদন ও বাজারজাত করতে বিএসটিআই’র অনুমোদন বাধ্যতামূলক করতে হবে। কোনও লবণ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আমদানির অনুমতি পাওয়ার পর লবণ আমদানি না করলে পরের বছর ওই প্রতিষ্ঠানকে আমদানির অনুমতি দেওয়া যাবে না। গ্রুপভিত্তিক আমদানি নিরুৎসাহিত করতে হবে। পূর্ববর্তী বছরগুলোর উৎপাদন ও বিপণন তথ্যের ভিত্তিতে লবণ মিলের উৎপাদন সক্ষমতা নির্ধারণ করতে হবে। সমহারে লবণ আমদানির অনুমোদন প্রদান না করে সক্ষমতার ভিত্তিতে আমদানির অনুমোদন দিতে হবে।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ