বৃহস্পতিবার ১৬ জুলাই ২০২০
Online Edition

বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা শুধু ঘোষণা নয় দর্শন-বিচারপতি মানিক

 

স্টাফ রিপোর্টার: বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা শুধু একটি ঘোষণা না, এটি একটি দর্শন। ছয় দফায় ছিল আমাদের মুক্তিযুদ্ধের প্রথম ঘোষণা। ১৯৭০ সালের নির্বাচনের ঘোষণাপত্রও ছিল এই ছয় দফা বলে মন্তব্য করেছেন বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধে একটি সেক্টরের কমান্ডার হিসেবে যুদ্ধ করলেও শামসুদ্দিন মানিকের মতে, জিয়া মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানের চর হয়ে অংশ নেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা ও আমাদের স্বাধীনতা শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন মানিক এ মন্তব্য করেন। জাগো বাংলা ফাউন্ডেশন সেমিনারটির আয়োজন করে। জাগো বাংলা ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী নাসির আহমেদের সভাপতিত্বে সেমিনারে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, জাতীয় বিশ্বিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হারুন অর রশিদ, সম্প্রীতি বাংলাদেশের সদস্য সচিব ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল প্রমুখ।

জিয়াউর রহমানকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনের মূল পরিকল্পনাকারী উল্লেখ করে শামসুদ্দিন মানিক বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার প্রসিকিউটর ছিলাম আমি। মামলা থেকে এটা পরিষ্কার যে, বঙ্গবন্ধু হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী জিয়া। তিনি মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানের চর হিসেবে যোগ দেন। পাকিস্তানের একটি জাহাজ খালাস করতে গিয়ে মুক্তিবাহিনীর নজরে পড়ে যান। তখন জীবন বাঁচাতে মুক্তিযোদ্ধা সাজেন। 

১৯৬৬ সালে বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা প্রস্তাবকে বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ উল্লেখ করে এ অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি বলেন, তার ছয় দফা ছিল বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ। সেই ছয় দফা যদি সেদিন মেনে নেওয়া হতো, তাহলে সেদিনই বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্রে পরিণত হতো। ছয় দফার প্রতি জনগণের পূর্ণ সমর্থন ছিল। বঙ্গবন্ধু ভাষা আন্দোলনেরও নেতৃত্ব দেন, যা আমাদের দেশে সেভাবে প্রচারিত হয় না। তিনি আরও বলেন, তৎকালীন স্বৈরশাসক আইয়ুব খান বলেছিল ছয় দফার জবাব অস্ত্রের ভাষায় দেওয়া হবে। তিনি তাই করেছিলেন। আজ জাতির দুর্ভাগ্য যে আমাদের মধ্যে এমন কিছু লোক রয়েছেন যাদের মেধা শক্তি বলে কিছুই নেই। যাদের সুস্থ চিন্তা করার মতো কিছু নেই। বঙ্গবন্ধু আগেই বলেছিলেন আমরা যদি ক্ষমতা পাই তাহলে পূর্ব পাকিস্তানের নাম হবে বাংলাদেশ। সেমিনারে জাতীয় বিশ্বিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হারুন অর রশিদ লিখিত মূল প্রবন্ধ পাঠ করা হয়। এতে ছয় দফা, দফার পটভূমি, দফা প্রচারকালে বঙ্গবন্ধুর বক্তব্য এবং স্বাধীনতাযুদ্ধে এর প্রভাব তুলে ধরা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ