শুক্রবার ২৭ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

পাকিস্তানে আসিফ আলী জারদারির ১০ দিনের শারীরিক রিমান্ড মঞ্জুর

১১ জুন, রয়টার্স, ডন : পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারির ১০ দিনের শারীরিক রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ইসলামাবাদের বিশেষ আদালত। আগামী ২১ জুন পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করে ওই দিন জারদারিকে ফের আদালতে হাজির করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

পাকিস্তানের গণমাধ্যমের ফুটেজে দেখা গেছে, এনএবি সদস্যরা জারদারির বাড়িতে ঢুকছেন। পরে জারদারিকে তার ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টোকে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে দেখা যায়। এ সময় সেখানে কয়েকজন সমর্থক ‘ভুট্টো জিন্দাবাদ’ স্লোগান দেন। পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) কো-চেয়ারম্যান এবং পাকিস্তানের প্রয়াত সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর স্বামী জারদারি এর আগেও দুর্নীতির মামলায় জেলে ছিলেন।

পরবর্তীতে ২০০৮ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত জারদারি প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। তার বিরুদ্ধে ভুয়া ব্যাংক হিসাব এবং এসব ব্যাংক হিসাব থেকে শত শত কোটি রুপি বিদেশে পাচার করার অভিযোগ রয়েছে। তবে জারদারি এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, ভুয়া ব্যাংক একাউন্ট এবং অর্থ পাচারের বিষয়টি তদন্তের আওতায় এনএবি জারদারিকে গ্রেপ্তার করেছে। এ মামলায় জারদারির বোনের বিরুদ্ধেও তদন্ত চলছে। পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ইজাজ শাহ সোমবার পার্লামেন্টকে বলেছেন, জারদারি গ্রেপ্তারের ঘটনায় সরকারের কোনো ভূমিকা নেই। ওদিকে, পিপিপি’র এক মুখপাত্র জারদারি গ্রেপ্তারের ঘটনায় দলের নেতা-কর্মীদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ও নিজের পিতা আসিফ আলি জারদারিকে গ্রেপ্তারের ঘটনাকে রাজনৈতিক শিকার বলে আখ্যায়িত করেছেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) সভাপতি বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি। এই গ্রেপ্তারের সময় নির্ধারণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে প্রধান বিরোধী দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএলএন)। তারা বলেছে, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)-এর প্রস্তুত করা জনবিরোধী বাজেট থেকে জনগণের দৃষ্টি ভিন্নখাতে সরিয়ে দিতে জারদারিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার এই বাজেট ঘোষণা হওয়ার কথা। 

ওদিকে জারদারিকে গ্রেপ্তারের খবরে পাকিস্তানের বিভিন্ন শহরে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। পিপিপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েছেন। বিশেষ করে পিপিপি শাসিত সিন্ধু প্রদেশে এই বিক্ষোভ প্রকট আকার ধারণ করেছে। তবে নেতাকর্মীদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন বিলাওয়াল। বলেছেন, দলীয় নির্দেশনা মেনে চলতে।

ভুয়া ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে অর্থ পাচারের মামলায় গ্রেপ্তার-পূর্ববর্তী বা আগাম জামিন আবেদন করেছিলেন আসিফ আলি জারদারি। কিন্তু ন্যাশনাল একাউন্টেবলিটি ব্যুরো (এনএবি) সোমবার তা প্রত্যাখ্যান করে ইসলামাবাদের সেক্টর এফ-৮/৩ নম্বরে জারদারি হাউস থেকে গ্রেপ্তার করে তাকে। একটি কালো গাড়িতে করে নিয়ে যাওয়া হয় এনএবি’র রাওয়ালপিন্ডি অফিসে। সেখানে এনএবি’র ১৫ সদস্যের একটি টিম তাকে গ্রেপ্তার দেখায়। তখনও জাতীয় পরিষদে অধিবেশন চলছিল। পিপিপি তার কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির (সিইসি) বৈঠক আহ্বান করে। এতে বাজেট অধিবেশনে তাদের কৌশল কি হবে তা নির্ধারণ করার কথা।

এখানে উল্লেখ্য, একই মামলায় আসামি আসিফ আলি জারদারি বোন ফারিয়াল তালপুর। তার জামিনও বাতিল করেছে ইসলামাবাদের হাইকোর্ট। কিন্তু তাকে গ্রেপ্তার করা হয় নি। কারণ, তার বিরুদ্ধে তখনও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ইস্যু করা হয় নি। এ বিষয়ে এনএবি’র একজন কর্মকর্তা ডন’কে বলেছেন, মিসেস তালপুরকে এক বা দু’দিনের মধ্যে গ্রেপ্তার করা হবে।

আসিফ আলি জারদারিকে গ্রেপ্তারের পর রাতে আলাদা একটি সংবাদ সম্মেলন করেন বিলাওয়াল। দলীয় সিইসির বৈঠকে জারদারিকে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানানো হয়। বলা হয়, এ বিষয়ে দলগুলোর সঙ্গে পার্লামেন্টের ভিতরে ও বাইরে যোগাযোগ স্থাপনে একটি সমন্বয় কমিটি গঠন করবে পিপিপি। বিলাওয়াল বলেন, আমরা গণতন্ত্র, অর্থনীতি ও মানবাধিকার নিয়ে কোনো সমঝোতা করতে প্রস্তুত নই। আমরা বিশ্বাস করি, আসিফ আলি জারদারিকে গ্রেপ্তার একটি সামান্য অজুহাত। তাদের (সরকার) আসল টার্গেট হলো ১৯৭৩ সালের সংবিধান, ১৮তম সংশোধনী ও গণতন্ত্র। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ