শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

কুমিল্লায় কৃষি ব্যাংকের ভোল্ট ভেঙে টাকা লুট

কুমিল্লা অফিস : কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ধামতী ইউনিয়নের ধামতী আলিয়া কামিল মাদরাসা কৃষি ব্যাংক শাখার ভোল্ট ভেঙে ছয় লক্ষাধিক টাকা লুট করে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা।
দুধর্ষ ব্যাংক ডাকাতির ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দিবাগত রাতে। দায়িত্বে অবহেলার দায়ে পুলিশ ওই ব্যাংকের তিনজন নৈশপ্রহরীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে গেছে।
পুলিশ, ব্যাংক কর্মকর্তা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কৃষি ব্যাংকের ওই শাখাটি ১৯৯৬ সালে এখানে স্থাপিত হয়। গত ২৩ বছরে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। প্রতিদিনের লেনদেনও অন্যান্য শাখার তুলনায় অনেক ভালো। কিন্তু ঘটনার দিন কোনো নৈশপ্রহরী না থাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।
এদিকে, ব্যাংক ডাকাতির খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লার  পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাখাওয়াত হোসেন, সহকারী পুলিশ সুপর আমির আবদুল্লাহ, জেলা গোয়েন্দা শাখার ওসি মাইনুদ্দিন, দেবিদ্বার থানার ওসি মো. জহিরুল আনোয়ার, কৃষি ব্যাংক কুমিল্লা  জোনাল অফিসের জেনারেল ম্যানেজার পারভীন আক্তার, ডিজিএম আক্তারুজ্জামানসহ পুলিশ ও ব্যাংকের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
ব্যাংকের ক্যাশিয়ার মো. ইব্রাহীম খলিল বলেন, বুধবার ব্যাংকের লেনদেন শেষ হওয়ার পর ৫ লাখ ৮৮ হাজার ৯৭০ টাকা ভোল্টে রেখে যাই। এর আগের দিনেরও অতিরিক্ত ৫৫ হাজার টাকা ব্যাংকের ভোল্টে রক্ষিত ছিল।
কৃষি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক শরিফুর রহমান বলেন, ঘটনার দিন অজ্ঞাত কারণে নৈশপ্রহরী মিজানুর রহমান ব্যাংকে ছিলেন না। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় নৈশপ্রহরী মিজানুর রহমান এসে ব্যাংকের তালা খুলে দেখেন মাদরাসার বাউন্ডারির পাশের ব্যাংক ভবনের জানালার গ্রিল কেটে ভেতরে প্রবেশ করে দুর্বৃত্তরা ভোল্ট থেকে ওই টাকা লুট করে নিয়ে গেছে।
এ ঘটনায় নৈশপ্রহরী মিজানুর রহমান, সাহাব উদ্দিন ও এখলাসুর রহমানসহ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে গেছে পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।
দেবিদ্বার থানা পুলিশের ওসি মো. জহিরুল আনোয়ার বলেন, ব্যাংকের নিরাপত্তায় থাকা নৈশপ্রহরীরা ঘটনার দিন দায়িত্বে ছিলেন না। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজন নৈশপ্রহরীকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতী চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ