মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

কৃষক শ্রমিকদের দিকে তাকানোর সময় নেই সরকার ব্যস্ত দুর্নীতিতে -মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে খেলাফত মজলিশ ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে ঐতিহাসিক বদর দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে বক্তব্য রাখেন মজলিশের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : খেলাফত মজলিসের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, দেশবাসী এক দু:সহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে দিনাতিপাত করছে। কৃষকরা ধানের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না। দাম না পেয়ে কৃষকরা ক্ষেতে ধান পুড়িয়ে দিচ্ছে। পাটকল শ্রমিকদের বেতন-ভাতা আটকে দেয়া হয়েছে। দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতিতে সাধারণ মানুষ দিশেহারা। সরকারের কৃষক- শ্রমিকসহ সাধারণ মানুষের দিকে তাকানোর সময় নেই। সরকার দুর্নীতিতে ব্যস্ত। 

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরীর আয়োজিত ঐতিহাসিক বদর দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এইসব কথা বলেন। 

 খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী সভাপতি শেখ গোলাম আসগরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আজীজুল হকের পরিচালনায়  অনুষ্ঠিত ঐতিহাসিক বদর দিবসের আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা সৈয়দ মজিবর রহমান, মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী, অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম আমনিুর রহমান, খেলাফত আন্দোলনের নায়েবে আমীর মাওলানা মজিবুর রহমান হামিদী,  শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সহসভাপতি মুহাম্মদ কবির আহমদ, বাংলাদেশ শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যপরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়া, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি এম আবদুল্লাহ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ডক্টরস সোসাইটির আহ্বায়ক ডাঃ আবদুল্লাহ খান, মাওলানা এ কে এম জিয়াউল হক শামীম, অধ্যাপক ড. তারেক ফজল প্রমুখ।  

মাওলানা ইসহাক বলেন, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্রে বালিশ-কেটলিসহ আসবাবপত্র ক্রয়ে মহাদুর্নীতির মত সব সেক্টরেই দুর্নীতির ছড়াছড়ি। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে নৈতিকতাপূর্ণ সমাজ গঠন করতে হবে। একটি জবাবদিহীমূলক ইনসাফভিত্তিক জনক্যাণমূলক ও জনপ্রতিনিধিত্বশীল সরকার প্রতিষ্ঠায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। 

মাওলানা ইসহাক বলেন, কৃষকদের ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হবে। সরকার নির্ধারিত ১০৪০টাকা দরে কৃষকদের কাছ থেকে সরকারী ভাবে ধান ক্রয় করতে হবে। ২০ রমজানের মধ্যে পাটকল ও গার্মেন্টস শ্রমিক-কর্মচারীসহ সকলের বেতন- বোনাস দিতে হবে। 

মাওলানা ইসহাক বলেন, আজকে বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের যে দৃরাবস্থা তা থেকে উত্তরণে মুসলমানদের ঈমানী চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ন্যায় ও ইনসাফের পক্ষে, মজলুমের অধিকার আদায়ে আন্দোলন সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। যদি মুসলমানরা ঈমানের বলে বলিয়ান হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে ময়দানে ঝাপিয়ে পড়তে পারে তবে আল্লাহর সাহায্যে বিজয় সুনিশ্চিত। ঐতিহাস বদর যুদ্ধ তার প্রকৃষ্ট প্রমান। 

ইফতার মাহফিলে আরও উপস্থিত ছিলেন, খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ফয়জুল ইসলাম, হাফেজ মাওলানা জিন্নত আলী, মুফতি সাইয়্যেদুর রহমান, মুফতি ওযায়ের আমীন, শ্রমিক নেতা  হাজী নূর হোসেন, মুহাম্মদ তাসলিম উদ্দিন, ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইলিয়াস আহমদ, ঢাকা মহানগরীর সহসভাপতি মোঃ জহিল ইসলাম, মাওলানা শরিফুল ইসলাম, আলহাজ্ব মাওলানা মোস্তফা কামাল, খন্দকার সাহাব উদ্দিন আহমদ, এডভোকেট তাওহিদুল ইসলাম তুহিন, মোঃ আবুল হোসেন, হারুন অর রশীদ,  প্রকৌশলী আবদুল হাফিজ খসরু, অধ্যাপক মাওলানা সাইফুদ্দিন আহমদ খন্দকার, হুমাযুন কবির আজাদ, মুফতি ওসমান আশরাফী, মাওলানা মুহাম্মদ ইঊসুফ, হাজী হারুনুর রশীদ, কাজী আরিফুর রহমান, মাওলানা ফারুক আহমদ, সেলিম হোসাইন, মাওলান মুহাম্মদ আজিজুল হক, এ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ, মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, মুহাম্মদ শাহিন, মোঃ আবুল কালাম, এডভোকেট রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ