মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

সিলেটে ডিসকাউন্টের নামে অভিনব প্রতারণা!

সিলেট ব্যুরো : সিলেটে পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ডিসকাউন্টের নামে অভিনব প্রতারণায় নেমেছে কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ৫০% ছাড় এর ঘোষণা দিয়ে দিনের পর দিন ক্রেতাদের সাথে প্রতারণা করে যাচ্ছে এসব ব্যবসায়ী। ৭০০ টাকার প্যান্ট ৩৫০ টাকায়, ৯০০ টাকার শার্ট ৪৫০ টাকায়, স্বল্পমূল্যে ব্যান্ডের পণ্যগুলা খরিদ করতে এখনি চলে আসুন আমাদের দোকানে কিংবা আমাদের এখানে ৫০ থেকে ৭০ ছাড়ে পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে, এ সুযোগ থাকছে আর মাত্র দু'দিন তাই দেড়ি না করে আজই চলে আসুন আমাদের দোকানে সিলেটের জিন্দাবাজারে কিছু দোকানে হ্যান্ডমাইক বাঁজিয়ে এমন ভাবেই নিজেদের পণ্যের বিজ্ঞাপন করে যাচ্ছে তথাকথিত কিছু ব্যবসায়ী। গত কয়েক বছর ধরে নগরীর জিন্দাবাজারস্থ ডায়মন্ড ফ্যাশন ও মাইক ফ্যাশনে এমনই অভিনব কায়দায় ডিসকাউন্টের নামে পথচারী ক্রেতাদেরকে নিজেদের দোকানের প্রতি আকর্ষণ করে যাচ্ছে। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পণ্য সামগ্রীর মূল্য থেকে ৫০%বা ৭০% ডিসকাউন্ট দেয়ার কথা হ্যান্ড মাইকের মাধ্যমে প্রচার করলেও, স্বাভাবিক মূল্যের মতই বিক্রি করা হচ্ছে, কোন কোন পণ্য আবার অতিরিক্ত দামে ও বিক্রি করছে তারা। অথচ হ্যান্ড মাইকে ডিসকাউন্ট দেয়ার কথা শোনে ক্রেতারা ঐসব দোকানগুলোতে ভিড় করছেন, এবং নিজেদের অজান্তেই উচ্চমূল্যে পণ্য ক্রয় করে যাচ্ছেন। ডায়মন্ড ফ্যাশনে প্যান্ট কিনতে আসা সাইফুল নামের একজন বলেন, ডিসকাউন্টের কথা শোনে আসলাম কিন্তু দাম তো নগরীর অন্যান্য দোকানের মতই। ডিসকাউন্টের মত তো তেমন কিছু দেখছি না। ডিসকাউন্ট দেয়ার নামে ক্রেতাদের সাথে এমন অভিনব কায়দায় প্রতারণা করা প্রতিষ্ঠান দুটিকে প্রতিবেশি ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন সময় এগুলা বন্ধ করতে বলা হলেও কার্যত কোন ফল পান নি তারা। বিষয়টি নিয়ে ডায়মন্ড ফয়াশনের মালিক মো. ডায়মন্ড পাপ্পী বলেন, নগরীর অন্যান্য দোকান থেকে আমরা সস্তায় মাল বিক্রি করি, আর এই জিনিসটাই সবাইকে জানানোর জন্য মাইক ব্যবহার করছি। আমাদের বিক্রির পরিমান সহ্য করতে না পেরে হিংসাবশত প্রতিবেশি প্রতিষ্ঠানগুলো ডিসকাউন্টের নামে অতিরিক্ত দাম নেই বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে। মাইক ফ্যাশনের মালিক আব্দুল হান্নান বলেন, সিলেটে আমাদের থেকে সস্তায় কোথাও পণ্য বিক্রি করা হয় না, এই অফারগুলো সবাইকে জানানোর জন্যেই মাইক ব্যবহার করছি। এতে কারো সমস্যা হওয়ার কথা না। প্রতিবেশি প্রতিষ্ঠান ফেরদৌস ফ্যাশনের স্বত্ত্বাধিকারি এম এ রহিম বলেন, বছরের অধিকাংশ সময়ই তারা এরকম হ্যান্ডমাইক বাঁজিয়ে ডিসকাউন্ট দেয়ার কথা প্রচার করে থাকেন। প্রকৃতপক্ষে নগরীর অন্যান্য দোকানের মতই এখানে পণ্য বিক্রি হয়। রহিম বলেন, তাদের এই হ্যান্ড মাইক বাঁজানোর ফলে প্রতিবেশি প্রতিষ্ঠানগুলা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে জানানোর পর ও তারা এটি বন্ধ করছেন না। এ ব্যাপারে সিলেট জেলা বাজার কর্মকর্তা বলেন, অল্প দিনের মধ্যে এ সব প্রতারণাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ