মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

হজ্বের ভিসার আবেদনের পূর্বে বিমানের টিকিট সংগ্রহ করতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার : এ বছর হজ্ব এজেন্সিসমূহ হজ্ব অফিস, আশকোনা, ঢাকায় ভিসার আবেদনের জন্য পাসপোর্ট জমার সময় বিমানের টিকিটসহ জমা দিতে হবে। বিমানের টিকিট ছাড়া পাসপোর্ট গ্রহন করা হবে না।
গতকাল সোমবার দুপুের  ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর সভাকক্ষে হজ্ব ব্যবস্থাপনা-২০১৯ খ্রি. এর অগ্রগতি বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।
ধর্ম প্রতিন্ত্রী আলহাজ্ব এডভোকেট শেখ মো:আব্দুল্লাহ সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো: মাহবুব আলী উপস্থিত ছিলেন।
সভায় সিদ্ধান্ত হয় যে, এ বছর হজ্ব এজেন্সিসমূহ হজ্ব অফিস, আশকোনা, ঢাকায় ভিসার আবেদনের জন্য পাসপোর্ট জমার সময় বিমানের টিকিটসহ জমা দিতে হবে। বিমানের টিকিট ছাড়া পাসপোর্ট গ্রহন করা হবেনা। এছাড়া হজের ফ্লাইট চলাকালীন এজেন্সিগুলোর কার্যক্রম ও অগ্রগতি তদারকি করার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ৩ টি টীম সার্বক্ষনিক কাজ করবে। সভায় আরো সিদ্ধান্ত হয় যে, বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্স লি. এবং সাউদিয়া হজ্ব এজেন্সি গুলোর নিকট সরাসরি টিকিট বিক্রি করবে। বিমান আজকে থেকে টিকিট বিক্রয় শুরু করেছে। সাউদিয়া আগামী দু-একদিন এর মধ্যে টিকিট বিক্রি শুরু করবে। এ বছর Makka Route Initiative এর আওতায় বাংলাদেশি হজ্ব যাত্রীদের সৌদি অংশের ইমিগ্রেশন বাংলাদেশেই সম্পন্ন হবে, সেজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে সর্বোচ্চ আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে।
সভায় ধর্ম মন্ত্রণালয় এর সচিব মো: আনিছুর রহমান, বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এর সচিব মো: মুহিবুল হক, ধর্ম মন্ত্রণালয় এর অতিরিক্ত সচিব কাজী হাসান আহমেদ যুগ্ম সচিব (হজ্ব) এবিএম আমিন উল্লাহ নূরী, সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ , বিমান বাংলাদেশ লি. এবং সাউদিয়া এর প্রতিনিধিবৃন্দ, হজ্জ এজেন্সিস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) এর সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
বিমানের হজ্ব¡ ফ্লাইটের টিকিট বিক্রি শুরু : হজ্ব ফ্লাইটের টিকিট গতকাল সোমবার থেকে বিক্রি শুরু করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। টিকিট বিক্রি কার্যক্রম শুরুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিমানের মুখপাত্র শাকিল মেরাজ। তিনি জানান, এ বছর হজ্বে যাবেন এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। এর মধ্যে ৬৩ হাজার ৫৯৯ জনকে পরিবহন করবে বিমান।
জানা গেছে, ৩২ দিনে ১৫৭টি ডেডিকেটেড ও ৩২টি শিডিউল ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান। প্রি-হজ্ব ফ্লাইট শেষ হবে ৫ আগস্ট। এ বছরই প্রথম ঢাকা থেকে মদিনায় ১১টি হজ্ব ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। এছাড়া চট্টগ্রাম থেকে জেদ্দা ১০টি, সিলেট থেকে জেদ্দা ৩টি, চট্টগ্রাম থেকে মদিনা ৭টি ডেডিকেটেড হজ্ব ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। বাকি ১২৬টি ফ্লাইট ঢাকা থেকে জেদ্দায় নিয়ে যাবে হজ্ব যাত্রীদের।
হজ্ব ফ্লাইটে নিজস্ব বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর উড়োজাহাজ ব্যবহার করবে বিমান। ফিরতি হজ্ব ফ্লাইট ১৭ আগস্ট থেকে শুরু হয়ে শেষ হবে ১৪ সেপ্টেম্বর।
এ বছরই প্রথম ঢাকায় ইমিগ্রেশন করা হবে হজ্বযাত্রীদের। ফলে সৌদি আরবে গিয়ে ইমিগ্রেশনের জন্য লাইনে দাঁড়াতে হবে না তাদের। তবে এ কারণে ফ্লাইটের একদিন আগেই হজ্বযাত্রীদের তথ্য সৌদি আরবে পাঠাতে হবে। ওই সময়ের পর ফ্লাইটে নতুন করে যাত্রী নেয়া যাবে না। এ কারণে হজ্ব এজেন্ট ও যাত্রীরা তাদের ফ্লাইট ডিপার্চারের ২৪ ঘণ্টা আগেই যাত্রার বিষয়টি আবশ্যিকভাবে নিশ্চিত করতে হবে। নির্ধারিত শিডিউলের বাইরে অতিরিক্ত স্লট দেবে না সৌদি সরকার। জটিলতা এড়াতে এ বছর কোনও যাত্রী হজ্ব ফ্লাইটের যাত্রা বাতিল করলে বা সময় পরিবর্তন করলে জরিমানা আদায় করবে বিমান। যাত্রা বাতিলের ক্ষেত্রে ৩৫০ ইউএস ডলার এবং যাত্রা তারিখ পরিবর্তনের ক্ষেত্রে সময় ভেদে ২০০ থেকে ৩০০ ডলার দিতে হবে।
শাকিল মেরাজ বলেন, সুষ্ঠুভাবে হজ্ব ফ্লাইট পরিচালনা করতে বিমানের পক্ষ থেকে সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। হজ্ব এজেন্সি ও হজ্বযাত্রীরা যথাসময়ে ফ্লাইটের টিকিট সংগ্রহ করলে কোনো ধরনের জটিলতা হবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ