শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

অপহরণের পর হত্যার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করা হয় কলেজ শিক্ষার্থীকে

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা : রূপগঞ্জ উপজেলার মাহমুদাবাদ এলাকায় অপহরণের পর হত্যার ভয় দেখিয়ে একাধিক বার কলেজ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করে ৩টি হত্যা, ডাকাতি, অপহরণ, অস্ত্র, মাদকসহ ১৫ মামলার আসামী ডাকাত সোলাইমান। উদ্ধারকৃত অপহৃত ওই কলেজ শিক্ষার্থী নারায়ণগঞ্জ বিজ্ঞ আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। গত বুধবার দুপুরে জবানবন্দির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান। ডাকাত সোলাইমান উপজেলার মাহমুদাবাদ এলাকার সালাউদ্দিনের ছেলে। ধর্ষিতা কলেজ শিক্ষার্থীর জবানবন্দির বরাত দিয়ে ওসি জানান, ডাকাত সোলাইমান অনেক দিন ধরেই ওই শিক্ষার্থীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। ফোনে বিভিন্ন সময় বিরক্ত করতো। সন্ত্রাসী ও ডাকাত হওয়ায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি হয়নি। গত ৮ মে দুপুরে রূপায়ন কিন্ডারগার্টেন স্কুলের সামনে থেকে মাইক্রোবাস যোগে জোরপুর্বক অপহরণ করে একটি বাড়িতে রাখে। ওই মাইক্রোবাসে আরো ৩ থেকে ৪ জন লোক ছিলো। ওই বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পর কলেজ শিক্ষার্থীকে চার দিন ধরে আটকে রাখা হয়। সেখানে হত্যার ভয় দেখিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে ডাকাত সোলাইমান। 
উল্লেখ্য, মুড়াপাড়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের একাদশ শ্রেণীতে পড়ুয়া শিক্ষার্থীকে অপহরণের পর ধর্ষণ করা হয়। পরে অপহৃতা শিক্ষার্থীর পিতা বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে গত ১২ মে রাতে ডাকাত সোলাইমানকে গ্রেফতার ও অপহৃতা কলেজ শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে পুলিশ।
ডাকাত সোলাইমানকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করলে আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ডাকাত সোলাইমানের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ