মঙ্গলবার ২৪ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

রাজকীয় কমিশনের তদন্ত শুরু হচ্ছে

১৩ মে, রয়টার্স : ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে নির্বিচারে গুলী চালিয়ে ৫১ জনকে হত্যার ঘটনার তদন্ত শুরু করছে নিউ জিল্যান্ডের রাজকীয় কমিশন।

গতকাল সোমবার সাক্ষ্যপ্রমাণভিত্তিক শুনানির মধ্য দিয়ে এ তদন্ত শুরু হবে বলে জানায় বার্তা।

অনলাইন সহিংসতা মোকাবিলায় বৈশ্বিক সমর্থন আদায়ে চলতি সপ্তাহে ফ্রান্সে একটি বৈঠকে যোগ দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা অ’ডুর্ন; তার মধ্যেই এ আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু হচ্ছে।

ক্রাইস্টচার্চে দুই মসজিদে গত ১৫ মার্চের হত্যাযজ্ঞের ঘটনাটি ফেইসবুকে সরাসরি সম্প্রচার করেছিল ওই সন্ত্রাসী বন্দুকধারী। শান্তিকালীন সময়ে এটিই নিউ জিল্যান্ডে সংঘটিত সবচেয়ে ভয়াবহ গুলীবর্ষণের ঘটনা।

নিউ জিল্যান্ডের রাজকীয় কমিশনের এ তদন্তে সন্দেহভাজন বন্দুকধারীর কর্মকা-, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও আন্তর্জাতিক যোগাযোগের ব্যবহার খতিয়ে দেখার পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদবিরোধী উপাদানগুলো ব্যবহারের অগ্রাধিকারে কোনো ধরনের ত্রুটি ছিল কি না, তাও পর্যালোচনা করা হবে।

“এখানে যেন এ ধরনের হামলা আর কখনোই না হয় তা নিশ্চিতে কমিশনের অনুসন্ধান সহায়তা করবে,” তদন্তের দ্বিতীয় কমিশনারের নাম ঘোষণা করে দেওয়া বিবৃতিতে এমনটাই বলেছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী।

রাজকীয় কমিশন তাদের ওয়েবসাইটে অগাস্ট পর্যন্ত এ হত্যাযজ্ঞ সম্পর্কে তথ্যউপাত্ত সংগ্রহ করা হবে বলে জানিয়েছে। চলতি বছরের ১০ ডিসেম্বর তাদের অনুসন্ধান প্রতিবেদন আকারে সরকারের কাছে জমা দেওয়া হবে।

দেশটির মুসলিম সম্প্রদায়ের অনেকেই তদন্ত বিষয়ে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

 “মুসলিম সম্প্রদায়ের অনেকেই শুনানির প্রক্রিয়া সম্পর্কে কোনো তথ্য পায়নি, যে কারণে তারা নিজেদেরকে এ প্রক্রিয়ার বাইরে মনে করছেন। আসল কথা হচ্ছে, আমরা চাই, আমাদের কথা শোনা হোক এবং আর যেন এড়িয়ে যাওয়া না হয়। আশা করবো, মুসলিম সম্প্রদায়ের সদস্যদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমে তথ্য নেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়া হবে,” বলেছেন ওয়েলিংটনভিত্তিক মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতা গুলেদ মির।

এ প্রসঙ্গে রাজকীয় কমিশনের মন্তব্যের জন্য যোগাযোগ করা হলেও তাৎক্ষণিকভাবে তাদের কাছ থেকে সাড়া পাওয়া যায়নি। রয়টার্স বলছে, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে যৌথভাবে একটি বৈঠকের সভাপতি হতে চলতি সপ্তাহেই প্যারিস যাচ্ছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী অ’ডুর্ন।

বুধবারের ওই বৈঠকে অনলাইন থেকে সন্ত্রাসী ও সহিংস উগ্রবাদী বিষয়বস্তু সরিয়ে ফেলতে বিভিন্ন প্রযুক্তি কোম্পানির শীর্ষ কর্মকর্তা ও বিশ্ব নেতাদের সমর্থন চাওয়া হবে।

ফেইসবুক, গুগল, টুইটারসহ বিভিন্ন টেক জায়ান্ট কোম্পানির প্রতিনিধিরা ওই বৈঠকে থাকবেন।

ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় গ্রেপ্তার সন্দেহভাজন ‘শ্বেত শ্রেষ্ঠত্ববাদী’ ব্রেন্টন ট্যারান্টের বিরুদ্ধে নির্বিচারে গুলী চালিয়ে মানুষ খুনের ৫০টি আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা হয়েছে।

অস্ট্রেলীয় এ নাগরিককে আগামী ১৪ জুন ফের আদালতে হাজির করার কথা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ