বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

শিক্ষকের মামলায় বিবাদী হলেন শিক্ষা কর্মকর্তা

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা: বরিশালের আগৈলঝাড়ায় জ্যেষ্ঠতা লংঘন করে বদলীর অভিযোগে শিক্ষা কর্মকর্তাসহ সাত জনের বিরুদ্ধে এক সহকারী শিক্ষকের আদালতে মামলা দায়ের। বিবাদীদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতের সমন জারি। উপজেলার বাকাল হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও বাকাল গ্রামের কেএম শামসুর রহমানের ছেলে মো. মিজানুর রহমান বরিশাল সহকারী জজ আদালতে বিচার প্রার্থনা করে মামলাটি দায়ের করেন। মামলার অপর অভিযুক্তরা হলেন জেলা প্রশাসক, প্রাথমিক শিক্ষার উপ-পরিচালক, জেলা শিক্ষা অফিসার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা হিসাব রক্ষণ অফিসার ও বারপাইক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা মুক্তা রানী সরকার। বিজ্ঞ আদালত বিবাদীদের বিরুদ্ধে সমন জারি করে আগামী ২৩ মে’র মধ্যে সমন ফেরতের নির্দেশ প্রদান করেছেন। মামলার আর্জিতে বাদি মিজানুর রহমান অভিযোগে বলেন, ২০১৮ সালের ২৯ আগস্ট ১৪১৬ স্মারকে জেলা শিক্ষা অফিসারের অফিস আদেশে আগৈলঝাড়া সদর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চার জন শিক্ষকের বদলী জনিত শূন্য পদ সৃষ্টি হয়। ওই শূন্য পদের বিপরীতে বাদী বর্তমান কর্মস্থল থেকে সদর মডেল স্কুলে বদলীর আবেদন করেন। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বদলী নির্দেশিকায় ৩ দশমিক ১ অনুচ্ছেদে জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে অগ্রাধিকার নির্ধারণ করার নির্দেশনা দেয়া হয়। বাদী ২০০৭ সালের ১জুলাই চাকুরীতে যোগদান করে জ্যেষ্ঠতা অর্জন করলেও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সিরাজুল হক তালুকদার মন্ত্রনালয়ের জ্যেষ্ঠতার নির্দেশনা অমান্য করে ২০০৯ সালের ৭মে চাকুরীতে যোগদান করা বারপাইক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা মুক্তা রানী সরকারকে সদর মডেল বিদ্যালয়ে পদায়নের সুপারিশ করে জেলায় প্রেরণ করেন। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার সুপারিশের ভিত্তিতে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা তা বাস্তবায়নের নির্দেশনা প্রদান করার কারণে ৭এপ্রিল প্রতিকার চেয়ে বিজ্ঞ আদালতে (এমপি ১১) মামলাটি দায়ের করেন। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সিরাজুল হক তালুকদার জ্যেষ্ঠতা লংঘনের প্রশ্নে বলেন, বদলী বিশেষ বিধানে শর্ত অনুযায়ী ৪(৩) ধারায় সদ্য বিধবা, ৮(৩) ধারায়  বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকা হওয়া এবং দু’টি শিশু বাচ্চাসহ উপজেলা সদরে বাড়ির অবস্থান ও ক্যাসমেইট সুবিধার কারনে মুক্তাকে সদর মডেল স্কুলে বদলীর সুপারিশ করা হয়েছে। নতুন কর্মস্থলে ওই শিক্ষকা যোগদানও করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ