বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মাজার করার অপচেষ্টা মুরাদনগরে কবর থেকে লাশ চুরির দায়ে সাত জনের বিরুদ্ধে মামলা

মুরাদনগর (কুমিল্লা) সংবাদদাতা: কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের বড় আলীরচর গ্রামের কবরস্থান থেকে লাশ চুরির ঘটনায় প্রশাসনসহ এলাকার সর্বমহলে তোলপাড় চলছে। মায়ের লাশ চুরির অভিযোগ এনে বুধবার রাতে সাত জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ছেলে আব্দুল কুদ্দুস। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহূর্তে অপ্রীতিকর ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, বড় আলীরচর গ্রামের মৃত আনু মিয়ার ছেলে কামাল উদ্দিন (৫৫) ঝাড়-ফুঁকের কাজ করতো। তিনি বিভিন্ন ব্যক্তিকে রোগ সারানোর নামে পানিপড়া, তাবিজ ও লালসুতা ইত্যাদি দিতেন। মারা যাওয়ার পর কবরস্থান ব্যতীত অন্যস্থানে তাকে কবর দিয়ে মাজার করার আপ্রাণ চেষ্টা চালায় কিছু অনুসারী। কিন্তু এলাকাবাসীর চাপে তাদের মাজার স্থাপন করা সম্ভব হয়নি। পরে অনুসারীরা জমির ব্যবস্থা করে সোমবার রাতে আলীরচর দক্ষিণ পাড়া কবরস্থান থেকে কামাল উদ্দিনের লাশ চুরি করতে যায়। তখন ভুলে একই গ্রামের মৃত সরাফত আলীর স্ত্রী আরুজা বেগমের লাশ চুরি করে প্রায় আধা কিলোমিটার দূরে মাজার স্থাপনের জন্য মাটিচাপা দেওয়া হয়। পরদিন সকালে এলাকাবাসী কবরস্থান থেকে লাশ গায়েব হওয়া ও নতুন কবর স্থাপন করার বিষয়ে জানাজানি হলে বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এরই মধ্যে একটি মহল ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয় বলে জানা গেছে।
এ দিকে মায়ের লাশ চুরির অভিযোগে ছেলে আব্দুল কুদ্দুস বাদী হয়ে  বড় আলীরচর গ্রামের শাহ আলম (৫৫), আব্দুস ছাত্তার (৬৭), কামাল মিয়া (৫০) জামাল মিয়া (৫০), জলিল মিয়া (৬৫), ধামঘর গ্রামের বাচ্চু মিয়া (৬০) ও ঢাকা নবাবপুরের বাসিন্দা মোসলেম মিয়াসহ (৫৫) ৭ জনের বিরুদ্ধে বুধবার রাতে মুরাদনগর থানায় একটি মামলা রুজু করে। মুরাদনগর থানার ওসি একেএম মনজুর আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার উদ্দেশ্যে লাশ চুরি করার অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ