বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

স্বপ্নতে চুরি করে স্বপ্নতেই চাকুরী

স্টাফ রিপোর্টার : নিজের শিশু বাচ্চার জন্য দুধ চুরি করে ধরা পড়া সেই বাবাকে চাকরি দিল সুপার শপ স্বপ্ন। আজ সোমবার থেকেই শিশুটির বাবা স্বপ্ন পরিবারে কাজে যোগ দেবেন। গতকাল রোববার বিকেলে ঢাকা মহানগর পুলিশের খিলগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) জাহিদুল ইসলাম এই তথ্য জানান।
জাহিদুল ইসলাম বলেন, নিজের সন্তানের জন্য দুধ চুরি করে ধরা খাওয়া বাবা এসেছিলেন আমার অফিসে। আমি স্বপ্নের লোকজনকেও ডেকেছিলাম। তারা লোকটিকে নিয়োগপত্র দিয়েছেন। তারপর আমার অফিস থেকে তাঁকে স্বপ্নের অফিসে নিয়ে যায়। সোমবার থেকেই তিনি স্বপ্নে যোগ দেবেন।
স্বপ্নের হেড অব সেলস সামসুদ্দোহা শিমুল বলেন, আমরা তাঁকে নিয়োগপত্র দিয়ে দিয়েছি। এখন তাঁকে নিয়ে আমরা মিটিংয়ে বসব। তিনি কোন বিভাগে কাজ করতে আগ্রহী বা কোথায় তিনি ভালো কাজ করতে পারবেন সেটা আমরা জেনে নেব আগে। সে অনুযায়ী তার বেতন কাঠামো ঠিক করা হবে। সোমবার থেকেই আমাদের পরিবারের সঙ্গে কাজ করা শুরু করবেন।
শুক্রবার খিলগাঁওয়ে সিটি করপোরেশন সুপার মার্কেটের সামনে শহীদ বাকি সড়ক এলাকায় এক বাবা তাঁর নিজ সন্তানের জন্য দুধ চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েন জনসাধারণের হাতে। জনসাধারণ তাঁকে টেনেহেচড়ে নিয়ে যান ঢাকা মহানগর পুলিশের খিলগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) জাহিদুল ইসলামের কাছে।
লোকজন ও চুরির দায়ে অভিযুক্ত শিশুর বাবার কাছ থেকে পুরো ঘটনা শোনেন এসি জাহিদুল। সাধারণ মানুষ এসিকে জানালেন, ‘স্বপ্ন সুপার শপ থেকে লোকটি এক প্যাকেট দুধ চুরি করে পালাচ্ছিলেন। এদিকে অভিযুক্ত লোকটি বলেন, স্যার, তিন মাস হলো চাকরি নাই, বেতন নাই। ঘরে ছোট বাচ্চা, দুধ কেনার টাকা নাই। তাই চুরি করছি। বাচ্চাকে তো বাঁচাতে হবে? কী করব বলেন?
ঘটনা শোনার পর এসি জাহিদুল জানতে চাইলেন দুধের দাম কত। তখন একজন জানালেন, দুধের দাম ৩৯০ টাকা। সঙ্গে সঙ্গে জাহিদুল ইসলাম ওই দুধের দাম মিটিয়ে লোকটিকে ছেড়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করলেন। এই ঘটনাকে নিয়ে জাহিদুল ইসলাম ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেই পোস্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে লোকটিকে চাকরি দেওয়ার কথা জানায় সুপার শপ স্বপ্ন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ