মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে ডাকাতের কবলে উপজেলা চেয়ারম্যান ॥ গাড়ি ভাংচুর

জীবননগর উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান হাফিজ ডাকাত দলের কবলে পড়ে মালামাল ও টাকা খুইয়েছেন

চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা: চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান হাফিজ ডাকাত দলের কবলে পড়ে মালামাল ও টাকা খুইয়েছেন, এ সময় তার ব্যক্তিগত গাড়ীটিও ডাকাতরা ভাংচুর করেছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার আলোচিত ডাকাতিপাড়া আন্দুলবাড়িয়া-সন্তোষপুর সড়কের গুপ্তপীরের মাজারের সন্নিকটে পুলিশ বক্সের অদুরে ডাকাতির এ ঘটনা ঘটে। ডাকাতদল এ সময় ঘণ্টাব্যাপি তান্ডব চালিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের গাড়িসহ ৫টি মিশুক, ৩টি ট্রাক ও ৫টি আলমসাধু আটকিয়ে তাদের কাছ থেকে প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক টাকাসহ ৮-৯ টি মোবাইল সেট লুট করে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে রাতেই চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান জানান, তিনি উপজেলার শাহপুর বাজার মসজিদে তারাবির নামাজ আদায় করার পর উপজেলা শহরের বাড়িতে ফিরছিলেন। রাত সাড়ে ১০ টার দিকে তিনি আন্দুলবাড়িয়া-সন্তোষপুর সড়কের পুলিশ বক্সের কাছে পৌঁছুলে ১০-১২ জনের মুখোশধারী ডাকাতদল রাস্তায় গাছ ফেলে ব্যারিকেড সৃষ্টি করে। দেশীয় অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত ডাকাত দলের সদস্যরা তার কাছ থেকে ২২ হাজার টাকা ও দুইটি মোবাইল ফোন সেট ও তার গাড়ি চালকের নিকট থেকে দেড় হাজার টাকাসহ ১টি মোবাইল ফোন সেট লুট করে নেয়। এসময় তার ব্যবহৃত ব্যক্তিগত গাড়িটিও ভাংচুর করে। পরে ডাকাত দলের সদস্যরা আরো ৫টি মিশুক, ৩টি ট্রাক ও ৫টি আলমসাধু আটকিয়ে তাদের কাছ থেকে প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক টাকাসহ ৮-৯ টি মোবাইল সেট লুট করে।
উপজেলা চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান অভিযোগ পুলিশ বক্সে কোনো পুলিশ না থাকার কারণেই ডাকাতির এ ঘটনা ঘটেছে। এদিকে খবর পেয়ে রাতেই চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার মোঃ মাহবুবুর রহমান, সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা-জীবননগর সার্কেল) আবু রাসেল, জীবননগর থানা অফিসার ইনচার্জ শেখ গনি মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
জীবননগর থানার ওসি শেখ গনি মিয়া বলেন, খবর পাওয়ার পরই পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। ঘটনাটি ডাকাতি-না দুর্বৃত্তদের পরিকল্পিত হামলা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে এবং দায়ীদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, আলোচিত এই স্থানে ডাকাতদল নিয়মিত এই ঘটনা ঘটালেও পুলিশকে তেমন তৎপরতা দেখাতে দেখা যায়না। যে কারণে গতকালও সাধারন মানুষকে পুলিশের সমালোচনা করতে দেখা যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ