রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০
Online Edition

জড়িতদের বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বিচার দাবি

স্টাফ রিপোর্টার: কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে চলন্ত বাসে নার্স শাহিনূর আক্তার তানিয়াকে ধর্ষণ ও হত্যার বিচারের দাবিতে সোচ্চার হয়ে উঠছে কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন সংগঠন। চাঞ্চল্যকর এ ধর্ষণ ও হত্যায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে জেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। একইসঙ্গে তারা বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করে এই হত্যা ও ধর্ষণ মামলার বিচারের দাবিও জানান। ইবনে সিনা হাসপাতালের সিনিয়র নার্স শাহিনূর আক্তার তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যায় জড়িত সব আসামিকে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে শহরে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছে বিভিন্ন সংগঠন।

গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএ), জেলা শাখার উদ্যোগে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সামনে স্টেশন রোডে মানববন্ধন করা হয়। এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন কিশোরগঞ্জ সদর পৌরসভার মেয়র মো. পারভেজ মিয়া, ডেপুটি সিভিল সার্জন মো. মুজিবুর রহমান, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন জেলা শাখার সম্পাদক আবদুল ওয়াহাব, বিএনএ কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মো. আ. ছালাম ভূঞা, সাধারণ সম্পাদক মো. ওমর ফারুক প্রমুখ।

সকাল সাড়ে ১০টায় শহরের স্টেশন রোডের কালীবাড়ি এলাকায় একই দাবিতে মহিলা পরিষদ মানববন্ধন করে। এ সময় অন্যদের মধ্যে জেলা শাখার মহিলা পরিষদের সভাপতি মায়া ভৌমিক, সাধারণ সম্পাদক আতিয়া হোসেন, সাবেক সভাপতি সুলতানা রাজিয়া ও নারীনেত্রী বিলকিছ বেগম বক্তব্য দেন।

বেলা ১১টার দিকে শহরের কালীবাড়ি মোড়ে মানববন্ধন করে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, কিশোরগঞ্জ জেলা শাখা ও সমকাল সহৃদ সমাবেশ। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল করে জেলা প্রশাসকের কাছে একটি স্মারকলিপি তুলে দেয়া হয়। এ সময় নারী নেত্রীরা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে মামলাটির বিচারের দাবি জানান। এ সময় বক্তৃতা করেন, জেলা মহিলা পরিষদের সভাপতি অ্যাড. মায়া ভৌমিক, সাধারণ সম্পাদক আতিয়া ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিলকিছ বেগম, নারীনেত্রী জাহানারা ইসলাম, সাজেদা ইয়াসমিন ও প্রতিভা শীলসহ প্রমুখ।

একই সময় ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সামনে মানববন্ধন করে কিশোরগঞ্জ নার্সিং ইনস্টিটিউট এবং ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের নার্স ও কর্মচারীরা। এ সময় তাদের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহমুদ পারভেজ, কিশোরগঞ্জের ডিপুটি সিভিল সার্জন ডা. মো. মজিবুর রহমান, জেলা মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ডা. আব্দুল ওয়াহাব বাদলসহ বিভিন্ন পেশার প্রতিনিধিরা। এছাড়া জেলা সিপিব, সমকাল সুহৃদ সমাবেশ, এসো পাশে দাঁড়াইসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন তানিয়া হত্যার প্রতিবাদে নানা কর্মসূচি পালন করেছে।

গত ৬ মে ঢাকার ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ নার্স হিসেবে কর্মরত শাহিনুর আক্তার বাসে করে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার বাহেরচর গ্রামের নিজ বাড়িতে আসছিলেন। পথে বাজিতপুরের জামতলি গজারিয়া এলাকায় শাহিনুরকে চলতি পথেই স্বর্ণলতা বাসের চালক নুরুজ্জামান নুরু, চালকের সহকারী লালন মিয়াসহ কয়েকজন জোরপূর্বক গণধর্ষণ শেষে মাথার পেছনে আঘাতে হত্যা করে ফেলে রেখে যায়। ঘটনায় চালক, চালকের সহকারীসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার পর রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

মানববন্ধন আলোচকেরা বলেন, কোনোভাবেই কমছে না সামাজিক অস্থিরতা। সমাজের নানা খাত এখন অবক্ষয়ের শিকার। শাহিনুর আক্তার হত্যা সামাজিক অবক্ষয় ও অস্থিরতার উদাহরণ। মানববন্ধন থেকে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচার দাবি করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ